যেভাবে কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করবেন

  

পিএনএস ডেস্ক : কোরবানি ঈদ কাল। আর এই ঈদের অন্যতম বিষয় হলো গরু খাসিসহ বিভিন্ন পশু কোরবানি। পরে এর মাংস দিয়ে হয় নিজেদের খাওয়া দাওয়া ও অতিথি আপ্যায়ন। মাংসের তিন ভাগ করার পর পরিবারের জন্য যে মাংসটুকু থাকে, তা একবারেই খেয়ে ফেলা যায় না বলে সংরক্ষণের প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু সঠিকভাবে মাংস সংরক্ষণের বিষয়টি আমাদের অনেকেরই অজানা। তাই সামান্য ভুলেও মাংস নষ্ট করতে না চাইলে জেনে নিন মাংস সংরক্ষণের উপায়গুলো:

১. কোরবানির ঈদের মাংস দীর্ঘসময় সংরক্ষণের উপায় হলো ডিপ ফ্রিজে রাখা। এজন্য ঈদের আগেই ডিপ ফ্রিজারটি একদম খালি করে ফেলুন এবং ভালো করে পরিস্কার করে নিন।

২. আপনি মাংস রান্না বা কাঁচা যে অবস্থাতেই ফ্রিজে রাখেন না কেন সেটি অবশ্যই এয়ারটাইট কনটেইনার, বক্স বা প্লাস্টিক ব্যাগে রাখুন। আর বক্সের মুখ অবশ্যই ঢাকনা দিয়ে ভালো করে লাগাবেন। এতে মাংস নষ্ট হবে না বা বাজ গন্ধ উঠবে না।

৩. মাংস একটু অন্যভাবেও রাখা যায়। কিমা করা মাংস তিন থেকে ছয় মাস পর্যন্ত ফ্রিজে সংরক্ষণ করে রাখা সম্ভব। আর মাংসের বড় টুকরো গুলো মোটামুটি ছয়মাস ভালো থাকে। এর চেয়ে বেশিদিন মাংস ফ্রিজে না রাখাই ভালো।

৪. কাটা মাংসগুলো ফ্রিজে সংরক্ষণের আগে অবশ্যই ভালো করে রক্ত পরিস্কার করে নিতে হবে। এগুলো থাকলে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে পারে। এরপরে ভালো করে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। পানি ঝরে গেলে এয়ারটাইট কনটেইনার, বক্স বা প্লাস্টিক ব্যাগে সংরক্ষণ করে রাখতে হবে। চর্বিসহ মাংসগুলো আলাদা রাখাই ভালো।

৫. সাধারণ রান্না করা মাংস তিন দিন পর্যন্ত ফ্রিজের নরমালে রেখে খাওয়া যায়। এর চেয়ে বেশিদিন রাখলে স্বাদ আর পুষ্টি দুটোই নষ্ট হয়ে যায়।

৫. যখন ফ্রিজ ছিল না, মানুষ তখনও মাংস সংরক্ষণ করতো, তবে প্রাচীন পদ্ধতিতে। এজন্য মাংস পাতলা করে কেটে লবণ মেখে নিতে হবে। পরে পরিস্কার কোনো শিক বা তারে আটকে কড়া রোদে শুকাতে হবে।

৬. আবার অল্প পানি, লবণ আর সামান্য হলুদ মরিচ দিয়ে দিয়ে মাংস জ্বাল দিয়ে রাখলে অনেকদিন পর্যন্ত তা ভালো থাকে। এতে কোরবানির মাংসের পুষ্টিও সহজে নষ্ট হয়না।

৭. মাংস ফ্রিজে রাখার এক সপ্তাহের মধ্যে বাসায় হঠাৎ ইলেকট্রিসিটি চলে গেলে খুব একটা ফ্রিজ খুলবেন না। এতে মাংস শক্ত হওয়ার আগেই বাতাস লাগলে বেশিদিন ভালো থাকবে না।

৮. ৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা তার নিচে কাঁচা মাংস ৪ থেকে ৬ দিন রাখা যায়। এছাড়া জিরো ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রার নিচে রাখলে গরুর কাঁচা মাংস ১০-১২ মাস ভালো থাকবে।

৯. আর মাংসে প্যাক করতে একটু ভারী পলিব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। কারণ পাতলা পলিব্যাগ ব্যবহার করলে বের করার সময় পলিব্যাগ ছিঁড়ে যেতে পারে। প্রতিটি ব্যাগের মাঝখানে কাপড় বা কাগজ দিয়ে রাখতে পারেন এতে প্রতিটা ব্যাগ একটার সঙ্গে আরেকটা লেগে যাবে না।

১০. মাংস সংরক্ষণের সময় প্যাকেটের গায়ে সংরক্ষণের তারিখ এবং গরু না খাসি সেটা লিখে রাখতে পারেন। এতে পরবর্তীতে প্যাকেট চিনতে সমস্যা হয় না।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech