ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্রমিক-কর্মচারীদের বোনাস বাতিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

  

পিএনএস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়াস্থ বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ড কোম্পানি লিমিটেডে কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীদের বার্ষিক আয়কর ভাতা ও একটি উৎসব বোনাস বাতিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন দু’শতাধিক শ্রমিক-কর্মচারী।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালের ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিরাসার এলাকায় বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ড কোম্পানি লিমিটেডের প্রধান কার্যালয়ের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে কোম্পানিতে কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীরা বিভিন্ন স্লোগান দেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এসময় বাংলাদেশ গ্যাসফিল্ড এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন (সিবিএ) এর সভাপতি মো. শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক মো. মুর্শেদুল বলেন, দ্বিপাক্ষিক চুক্তির মাধ্যমে আমরা কোরবানি ঈদে দুটি বোনান পেয়ে থাকি। গত ৩০ বছর ধরে এই বোনাস পেয়ে আসছি। কিন্তু সম্প্রতি কোম্পানির বোর্ড সভায় সিদ্ধান্তের পর একটি উৎসব ভাতা বাতিল করা হয়।

তিনি বলেন, বিজিএফসিএলের কর্মকর্তাদের আয়কর কোম্পানি কর্তৃক বহনের বিষয়ে ইতোপূর্বে বোর্ড সভায় গৃহীত আকারে সিদ্ধান্ত বহাল ছিল। কিন্ত এখন থেকে তা বাতিল বলে গণ্য হবে বলে কোম্পারির পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়। এছাড়া বোর্ডের সম্মতিতে কোম্পারির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ এবং এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন (সিবিএ)এর মধ্যে সম্পাদিত দ্বি-পাক্ষিক চুক্তির আওতায় কোম্পানি কর্তৃক আয়কর এবং বছরে ৩টি উৎসব বোনাস প্রদানের বিষয়ে পূর্বের সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়। এখন থেকে প্রত্যেক কর্মচারী নিয়ম অনুযায়ী বছরে ২টি উৎসব বোনাস পাবে বলে ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেয়া হয়।

এছাড়া কমিটির নির্দেশনার আলোকে বিজিএফসিএল এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রান্তিক সুবিধাদি একটি কমিটি গঠন করে কমিটির সুপারিশসহ বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নিকট উত্থাপন ও যথাযথ বাস্তবায়নের জন্য কোম্পানির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

সিবিএ নেতৃবৃন্দ বলেন, কোম্পানির বিধি বিধান অনুয়ায়ী তারা এটি করতে পারেন না।

এছাড়া কোম্পানির অধীনে সাড়ে ৭শ মিলিয়ন ঘন ফুট গ্যাস জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হয়ে আসছে।

কোম্পানিও লাভজনক অবস্থায় আছে। কোম্পানি কর্তৃপক্ষের অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত অবস্থান ধর্মঘট পালন করা হয়েছে।

আগামী চারদিন আমরা অপেক্ষা করবো। যদি বোনাসের পূর্বের সিদ্ধান্ত বহাল না করা হয়। পরবর্তীতে বৃহৎকর্ম সূচি ঘোষণার মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তারা।

পিএনএস/এসআইআর

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন