নেত্রকোনায় গৃহকর্মী হত্যার বিচার দাবি

  

পিএনএস ডেস্ক : নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান কাঞ্চনের বাসার কিশোরী গৃহকর্মী মারুফা হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় নেত্রকোনাস্থ মোহনগঞ্জ সমিতির উদ্যোগে শহরের মোক্তারপাড়া জেলা প্রেসক্লাবের সামনে এই মানব্বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে জেলা শহরে থাকা মোহনগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ছাড়াও জেলার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন অংশ নেয়।

এসময় বক্তারা বারহাট্টা উপজেলার সিংধা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ মাহবুব মোর্শেদ কাঞ্চনের বিগত দিনের সকল অন্যায় কর্মকাণ্ড তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন। একইসঙ্গে নিহত মারুফার মা আকলিমা আক্তারও কান্নাজরিত কণ্ঠি মেয়ের হত্যার সুষ্ঠু বিচার চান।

মানববন্ধনে সমাপনী বক্তব্য রাখেন, আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক মো. ইকবাল হুসেন তপু।

উল্লেখ্য, গত ৯ মে ইউপি চেয়ারম্যান কাঞ্চনের মোহনগঞ্জ বাসায় ১৪ বছর বয়সী গৃহকর্মী মারুফা আত্মহত্যা করেছে বলে চেয়ারম্যান নিজেই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

পরবর্তীতে ময়নাতদন্তের পর নানার বাড়ি কলমাকান্দায় দাফন করে ১১ মে ৯৯৯ এ কল করে সহায়তা চাইলে পুলিশ সুপার মো. আকবর আলী মুনসীর হস্তক্ষেপে মোহনগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের হয়। ওইদিন রাতেই চেয়ারম্যানকে পুলিশ আটক করে ১২ মে আদালতে পাঠায়। পরবর্তীতে ১৪ মে আবার জামিন নিয়ে বেরিয়ে যান চেয়ারম্যান।

এমন একটি চাঞ্চল্যকর মামলায় একদিনেই কি করে জামিন হয় এ নিয়ে মোহনগঞ্জবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলে ফেইসবুকে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। এরই ধারাবাহিকতায় এক যুবকের ফেইসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে মোহনগঞ্জের সন্তান প্রধানমন্ত্রীর সাবেক একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসানের ভাই বিচারপতি ওবায়দুর রহমান শাহিনকে নিয়ে কটুক্তি করা হয়েছে মর্মে থানায় একটি লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইলিয়াস নামে এক যুবককে আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন