কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইয়ের মৃত্যু, টাকা দিয়েও মেলেনি আইসিইউ!

  

পিএনএস ডেস্ক:চট্টগ্রামে জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে সাত ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান।

মৃতরা হলেন- হাটহাজারী উপজেলার সদর পূর্ব দেওয়ান নগর জোহরা বাপের বাড়ির গোলাম রসুলের ছেলে দুবাই প্রবাসী শাহ আলম ও তার ছোট ভাই হাটহাজারী বাজারের এন জহুর মার্কেটের আপন ফ্যাশনের মালিক শাহজাহান।

মৃতের স্বজন মো. সারওয়ার মোর্শেদ জানান, তিন-চারদিন আগে জ্বর-সর্দি নিয়ে চমেক হাসপাতালে ভর্তি হন দুই ভাই। এর মধ্যে শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাদের আইসিইউতে রাখার পরামর্শ দেন চিকিৎসক। কিন্তু হাসপাতালে অনেক ধরনা দিয়েও আইসিইউ বেড মেলেনি। সেখানেই শুক্রবার বিকেল তিনটায় শাহ আলম ও রাত দশটায় শাহজাহান মারা যান।

হাসপাতালে আইসিইউ বেড না পাওয়ায় বিনা চিকিৎসায় দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ স্বজনদের। এদিকে সাত ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইয়ের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জানা গেছে, দুবাইয়ের আবীরস্থ সবজি মার্কেটে কাজ করতেন শাহ আলম। গেল জানুয়ারির শেষে ছুটিতে বাড়িতে ফেরেন। কিন্তু করোনার কারণে আর যেতে পারেননি। তার ছয় বছরের একটি ছেলে রয়েছে। ছোট ভাই শাহজাহানেরও পাঁচ বছর বয়সী এক মেয়ে ও এক বছরের ছেলে রয়েছে।

মৃতদের খালাতো ভাই খোরশেদ বলেন, আইসিইউর অভাবে সাত ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইকে হারালাম। চিকিৎসকরা আইসিইউতে রাখতে বলেছেন। কিন্তু কোনো বেড পাইনি। টাকা দিয়েও কোনো হাসপাতালে মেলেনি আইসিইউ বেড। এমনকি সংশ্লিষ্টদের অসহযোগিতার কারণে সময়মতো করোনা পরীক্ষাও করাতে পারিনি।

তিনি আরো বলেন, এ হাসপাতাল থেকে ওই হাসপাতালে ধরনা দিতে দিতেই চোখের সামনেই মারা গেছেন দুই ভাই। কিন্তু আপনজন হিসেবে চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া কিছুই করতে পারিনি।

চিকিৎসা ব্যবস্থার অব্যবস্থাপনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে খোরশেদ বলেন, করোনা উপসর্গ নিয়ে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হলেও কয়েকদিন আগে নমুনা নেয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত রিপোর্ট হাতে আসেনি।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন