করোনা উপসর্গে মৃত্যু, ভয়ে এগিয়ে আসলো না আত্মীয়রা!

  

পিএনএস ডেস্ক:নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে আউলিয়া বেগম নামে এক নারীর মৃত্যুর পর ভয়ে তার দাফনে কেউ এগিয়ে আসেননি। তার মৃত্যুর প্রায় ছয় ঘণ্টা পর মরদেহ দাফন করে স্বেচ্ছাসেবক টিম।

শুক্রবার (৫ জুন) রাত ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জ- ৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকার গঠিত স্বেচ্ছাসেবক টিমের সদস্যরা মরদেহ দাফন করেন।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের আলমপুরা গ্রামের হোসেন আলীর স্ত্রী আউলিয়া বেগম কয়েকদিন ধরে জ্বর, ঠান্ডা, শ্বাসকষ্ট ও গলা ব্যথায় ভুগছিলেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর করোনার ভয়ে আত্মীয় স্বজন ও এলাকাবাসী মরদেহের পাশে যায়নি। খবর পেয়ে সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা রাতে তার স্বেচ্ছাসেবক টিমকে আউলিয়া বেগমের মরদেহ দাফনের জন্য হোসেন আলীর বাড়িতে পাঠান।

স্বেচ্ছাসেবক টিমের লিডার মো. সানাউল্লাহ ব্যাপারী বলেন, রাত ১২টার দিকে ওই বাড়িতে গিয়ে মরদেহ ঘর থেকে বের করে জানাজা করে নানাখি কবরস্থানে দাফন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিভিন্ন পর্যায়ে টিম গঠন করে দেয়া হয়েছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর পর দাফনের জন্য অনেকেরই স্বজনরা কেউ এগিয়ে আসে না। এটা অমানবিক। স্বেচ্ছাসেবক টিম গিয়ে রাতে ওই নারীর দাফন কাজ সম্পন্ন করেছে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন