ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কওমী পন্থীদের মানববন্ধন

  

পিএনএস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা তৌহিদী জনতার ব্যানারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসা এবং হেফাজতে ইসলাম এর অনুসারী কওমী পন্থীদের উদ্যোগে আহমদিয়া মুসলিম জামাত (কাদিয়ানী) মতাবলম্বী মুসলিমদের রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট দাবী জানিয়ে ২০ জানুয়ারী সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের প্রধান সড়কে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা সদরের প্রেস ক্লাব চত্বর হতে শুরু করে মেড্ডা থেকে কাউতুলী পর্যন্ত বিস্তৃত ৩ কিলোমিটার ব্যাপী প্রধান সড়কের দুই পার্শ্বে এই মানববন্ধন পালন করে জেলার সদর, বিজয়নগর, নবীনগর, আখাউড়া, কসবা হতে আগত বিভিন্ন মাদ্রাসার কওমী ছাত্র ও শিক্ষকগণ। সকাল সোয়া ১০টা থেকে সোয়া ১২টা পর্যন্ত দুই ঘন্টা যাবত মানববন্ধন চলে। রোগীর গাড়ী ছাড়া সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এ সময় মাদ্রাসা গুলো বন্ধ রেখেই সবাই মানববন্ধনে যোগ দেন বলে ছাত্র শিক্ষকগণ জানায়।

মানববন্ধন চলাকালে মুফতি মোবারক উল্লাহ, মাওলানা শওকত আমীন, মূফতি এনামুল হাসান, মাওলানা বেলায়েতুল্লাহ নূর, মাওলানা আব্দুর রহিম কাসেমীসহ অর্ধ শতাধিক আলেম ওলামা তাদের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর নিকট আহমদিয়া মুসলিম জামাত (কাদিয়ানি) মতাবলম্বী মুসলিমদের কাফের (অমুসলিম) ঘোষণা দেয়ার জোর দাবী জানান । দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে ঘোষণা দেন বক্তারা। পরে একই দাবীতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী জেলার শীর্ষ আলেম ওলামারা।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জানুয়ারি শহরের কান্দিপাড়া এলাকায় খতমে নবুয়ত নামে একটি মাদ্রাসা আহমদিয়া মুসলিম জামাত (কাদিয়ানী)দের দ্বারা দখল চেষ্টার অভিযোগ এনে গত কয়েকদিন যাবৎ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের কওমি মাদ্রাসা জামিয়া ইসলামিয়া এবং খতমে নবুয়ত মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও আহমদিয়া মুসলিম জামাত অনুসারীদের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছে। এনিয়ে ১৪ জানুয়ারি রাতে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তার দুই দিন পর কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবী জানিয়ে শহরের মাদ্রাসা ছাত্র ও ইসলাম অনুসারীরা বিক্ষোভ করেন। অপরদিকে, কাদিয়ানীরা তাদের বিরুদ্ধে আনা খতমে নবুয়ত মাদ্রাসা দখলের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
মানববন্ধনে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত ছিল। যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেই দিকে নজর রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসি মো: সেলিম উদ্দিন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech