লক্ষ্মীপুরে অকৃতকার্য ছাত্রদের পরীক্ষায় ফরম ফিলাপ করতে না দেওয়ায় স্কুলে হামলা

  

পিএনএস, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার মাদারী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এস.এস.সি মডেল টেষ্ট পরীক্ষায় অকৃতকার্য ছাত্রদের ফরম পুরণ করতে না দেওয়ায় স্কুলে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার রাতে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির মিটিং শেষে এ হামলার চালায় অকৃতকার্য ২০-২৫জন ছাত্র ও বহিরাগতরা। হামলা কারীরা স্কুলের আসবাবপত্র, দরজা-জালানা, বৈদ্যুতিক বাল্ব, সিসি ক্যামরা ও তিনটি গভীর নলকূপ ভেঙে তছনছ করে। এতে স্কুলের প্রায় ১০লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান স্কুল পরিচালনা কমিটি।

বিদ্যালয় ও স্থানীয়রা জানান, মান্দারী উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষা বর্ষের এসএসসি মডেল টেষ্ট পরীক্ষায় মোট ২০৫জন অংশগ্রহণ করে এতে ১৬৮জন কৃতকার্য হয়। বাকি ৩৭ অকৃতকার্য হয়। অকৃতকার্যদের মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ৩জন, কমার্স বিভাগে ৯জন ও মানবিক বিভাগে ২৯জন।

এদের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের বিষয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মতি ক্রমে বিদ্যালয়ের সম্মানের কথা বিবেচনা করে ও তাদের পরীক্ষার রেজাল্ট বিবেচনা করে তাদেরকে এই বছর এসএসসি পরীক্ষার ফরম পুরণ না করার সিদান্ত গ্রহণ করা হয়।

পরিচালনা কমিটির বৈঠকের সময় অকৃতকার্য ২০-২৫জন ছাত্রসহ আরো বাহিরাগত ৮-১০জন উপস্থিত স্কুলে উপস্থিত ছিলো। পরে পরিচালনা কমিটির বৈঠক শেষে ছাত্রদের পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে তাদেরকে বৈঠকের সিদান্ত জানিয়ে দিয়ে তারা স্কুল থেকে চলে যান।

পরিচালনা কমিটির সদস্য ও শিক্ষকরা স্কুল থেকে চলে যাওয়ার পরে অকৃতকার্য ছাত্ররা স্কুলের তিনটি ভবনে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। এ সময় তারা স্কুলের দরজা-জানালা, আসবাবপত্র, সিসিটিভি ও বৈদ্যুতিক বাল্ব ও তিনটি গভীর নলকূপ ভাংচুর করে।

এ বিষয়ে শুক্রবার সকালে মান্দারী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহিম, অভিভাবক সদস্য মিজানুর রহমান মিলু, মো. ফারুক হোসেন, মো. আবদুল্যা, মো. আলমগীর মেম্বার, প্রতিষ্ঠাতা দাতা সদস্য মলয় কুমার ব্যাণার্জী, শিক্ষক প্রতিনিধি ইসমাইল হোসেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন, অভিভাবক জাকির হোসেন নাছির পাটওয়ারী, সামছুল আলম সবুজ প্রমুখ।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহিম জানান, এ বিষয়ে পুলিশ সুপারসহ উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। স্কুলে হামলা ও ভাঙচুরের বিষয়ে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির সিদান্ত অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ ব্যাপারে চন্দ্রগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন বিষয়টি শুনেছি। ঘটনারস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech