ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা ৬টি আসনে আওয়ামী লীগের ৮০ জন প্রার্থীর মনোননয়নপত্র সংগ্রহ

  

পিএনএস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে মোঃ রাকিবুর রহমান রকিব : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা ৬টি আসনে আওয়ামীলীগের ৮০ জন প্রার্থীর মনোননয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৬টি আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন আওয়ামীলীগের ৮০ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী। গত ১০ নভেম্বর শুক্রবার থেকে গত ১২ নভেম্বর রবিবার পর্যন্ত প্রার্থীরা ধানমন্ডির দলীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৬ টি আসনের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫-(নবীনগর) আসনে সর্বোচ্চ ২৪জন প্রার্থী এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬-(বাঞ্চারামপুর) আসনে সর্বনিম্ন ৭ জন প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। প্রার্থীদের মধ্যে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ফজিলাতুন নেসা বাপ্পী ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১-(নাসিরনগর)
এই আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ১৩জন প্রার্থী। এরা হলেন এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য বি এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ফজিলাতুন নেসা বাপ্পী, প্রয়াত মন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হকের স্ত্রী দিলশাদ আরা মিনু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার, সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হকের সহধর্মিনী দিলশাদ আরা বেগম চিনু, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ নাজির মিয়া, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগ নেতা এম.এ করিম, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ এহসান, নিউইয়র্ক সিটি আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ কে এম আলমগীর, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষেদের নাসিরনগর উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আদেশ চন্দ্র দেব, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার সম্পাদক এমবি কানিজ, ঢাকাস্থ নাসিরনগর উপজেলা সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ আলী আশরাফ, বাংলাদেশ আওয়ামী প্রজন্মলীগের সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মোঃ ইখতেশামুল কামাল ও বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রাখেশ চন্দ্র সরকার।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২-( সরাইল-আশুগঞ্জ)
এই আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ১৮জন প্রার্থী। মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকারীরা হলেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ফজিলাতুন্নেছা বাপ্পী, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জোবেদা খাতুন পারুল, ধানমন্ডি থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি কামাল আহমেদ দুলাল, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মঈন উদ্দিন মঈন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হান্নান রতন, সরাইল উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক অ্যাডভোকেট নাজমুল হোসেন, সরাইল উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম শিউলী আজাদ, সরাইল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট কামরুজ্জামান আনসারী, সরাইল উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আশরাফ উদ্দিন মন্তু, সরাইল উপজেলা আওয়ামীলীগ সাবেক আইন ভিশয় সম্পাদক আওয়ামীলীগ ে নেতা অ্যাডভোকেট সৈয়দ তানবীর হোসেন কাউছার, আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক হাজী মোঃ ছফিউল্ল¬াহ মিয়া, যুগ্ম আহবায়ক হানিফ মুন্সী, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু, আশুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আনিছুর রহমান, সাবেক যুগ্ম-সচিব বর্তমান আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটির,-১-নাং সদস্য ফরহাদ রহমান (মাক্কী,) কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য মুজিবুর রহমান ও আওয়ামীলীগ নেত্রী সাদেকা বেগম।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩-(সদর-বিজয়নগর)
এই আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ১০জন প্রার্থী। এরা হলেন এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র. আ. ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম, সাবেক সচিব মিজানুর রহমান, সাবেক পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনারা আলম, আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আলমগীর, সাবেক ছাত্রনেতা আশরাফ উদ্দিন লিমন, মোঃ শামসুদ্দোহা, জহিরুল ইসলাম রতন, ও মোছাঃ আসমা বেগম।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪- (কসবা-আখাউড়া)
এই আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ৮জন প্রার্থী। এরা হলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য ও আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এম.পি, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোঃ শাহ আলম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য নারায়ণ সাহা মণি, যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা শ্যামল কুমার রায়, কসবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শামসুল হক, অ্যাডভোকেট আবু আমজাদ, অ্যাডভোকেট আলমগীর, জি এইচ এম কাজল।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫- ( নবীনগর)
এই আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ২৪জন প্রার্থী। এরা হলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য ও নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদল, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের উপদেষ্টা এবাদুল করিম বুলবুল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা এ কে এম মমিনুল হক সাঈদ, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমবায় ও স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নিয়াজ মোহাম্মদ খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম, সদস্য জাকির হোসেন, মোঃ সাঈফুর রহমান, কবির আহমেদ ভূঁইয়া, মোঃ হেলাল উদ্দিন, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম টিপু, নবীনগর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক নুরুন্নাহার বেগম, যুগ্ম আহবায়ক মাহমুদা আক্তার শিউলি, ইতালি ও সুইডেন প্রবাসী বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি সিরাজরুল হক রানা, আওয়ামী লীগ সমর্থক খন্দকার এনামুল নাছির, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা আলামিনুল হক ও মাঈন উদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গোলাম জাকারিয়া, রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য শেখ আবুল হোসেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সহ-সম্পাদক জহির উদ্দিন সিদ্দিক টিটু, আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা মুত্তাকিমা এবং কেন্দ্রীয় যুব মহিলালীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক তাহরিমা হক সুক্তি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬- (বাঞ্ছারামপুর)
এই আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ৭জন প্রার্থী। প্রার্থীরা হলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য ক্যাপ্টেন (অব.) এ বি তাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবুল খায়ের দুলাল, বাঞ্ছারামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা সম্পাদক সাঈদ আহমেদ বাবু ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ গোলাম মোস্তফা কামাল।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার বলেন, একটি বড় দলে অনেকেই প্রার্থী হতে পারেন। যাচাই-বাছাই শেষে দলীয় সভানেত্রী যাকে মনোনয়ন দেবেন তার পক্ষেই দলীয় নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবেন।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech