হরিণের চামড়ার ওপর সৌম্যর বিয়ের আশীর্বাদ!

  

পিএনএস ডেস্ক : হরিণের চামড়ার ওপর বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার সৌম্য সরকারের বিয়ের আশীর্বাদ অনুষ্ঠানের ছবি আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

জানা যায়, আগামী বুধবার সৌম্য সরকারে সঙ্গে প্রিয়ন্তী দেবনাথ পূজার বিয়ে হওয়ার কথা। এর আগে বিয়ের বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা রয়েছে।

সোমবার কনের বাড়িতে বিয়ের আশীর্বাদ অনুষ্ঠান হয়। তবে শুক্রবার ছেলের বাড়ির আশীর্বাদের ছবিতে সৌম্যকে হরিণের চামড়ার ওপর কিছু আনুষ্ঠানিকতা সারতে দেখা যায়। ছবিটি ইন্টারনেটের বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় আলোচনা শুরু হয়।

ছবিতে দেখা যায়, হরিণের চামড়ার তৈরি আসনের ওপর বসে আছেন সৌম্য সরকার। কখনো আবার দাঁড়িয়ে রয়েছেন। তার আশীর্বাদের সকল কার্যক্রম সম্পন্ন হয় হরিণের চামড়ার ওপরেই।


আর এসব ছবি নিয়েই শুরু হয়েছে তর্ক-বিতর্ক। অনেকেই বলছেন, এটা ধর্মীয় লৌকিকতা হতে পারে। কেউ বলছেন, তার এমনটি করা উচিত হয়নি।

এ বিষয়ে সৌম্য সরকারের বাবা সাবেক সাতক্ষীরা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কিশোরী মোহন সরকারের কাছে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তিনি ফোন কেটে দেন।

বন্যপ্রাণী ক্রাইম কন্ট্রোল ইউনিটের পরিচালক আকন বলেন, কেউ বন্যপ্রাণীর চামড়া ব্যবহার করে বিয়ে বা কোন অনুষ্ঠান করতে পারেন না। এমনকি হরিণের চামড়া সংগ্রহে রাখাও অপরাধ। আমরা এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিচ্ছি।

উল্লেখ্য, আইন অনুযায়ী লাইসেন্স ও পারমিট প্রাপ্ত ব্যক্তি ব্যতীত অন্য কারও কাছে বন্যপ্রাণী, বন্যপ্রাণীর অংশ পাওয়া যায় অথবা তা থেকে উৎপন্ন দ্রব্য ক্রয়, বিক্রয়, আমদানি-রপ্তানি করেন আর যদি অপরাধ প্রমাণিত হয় তাহলে সর্বোচ্চ এক বছরের সাজা অথবা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে। একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটলে তিন বছরের সাজা অথবা সর্বোচ্চ দুই লাখ টাকা জরিমানা।

সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, তারা জাতীয় দলের ক্রিকেটার, আমাদের দেশের সম্পদ। তাদের দেশের আইন মেনে চলা উচিত। ঘটনা সত্য হলে এ বিষয়ে আমরা কিছু করতে গেলে সবাই বলবেন পুলিশ বাড়াবাড়ি করছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন