আমি খুব বেশি চিন্তিত না: মুমিনুল

  

পিএনএস ডেস্ক : ‘এটি পার্ট অফ লাইফ। আপনার কোনো সময় খারাপ হবে, কোনো সময় ভালো হবে। এটি নিয়ে আমি খুব বেশি চিন্তিত না।’- ভারতের বিপক্ষে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে একপর্যায়ে এভাবেই বললেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক।

এমনকি ইন্দোরে মাত্র তিন দিনেই ইনিংস ও ১৩০ রানে হারের মাঝেও বেশ কিছু ইতিবাচক দিক খুঁজে পাচ্ছেন বাংলাদেশের নতুন টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল। তবে এমন হারের কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে দল হিসেবে পারফর্ম করতে না পারাকেই দায়ী করেছেন তিনি।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ইন্দোর টেস্টই ছিল বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ। যে ম্যাচে তিন দিন জুড়েই ফুটে উঠেছে কেবল টাইগারদের অসহায়ত্ব। টস জিতে আগে ব্যাট করে প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৫০ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। বিপরীতে সফরকারী বোলারদের পুড়িয়ে ৬ উইকেটে ৪৯৩ রান করে নিজেদের প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। এরপর নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৩ রানে গুটিয়ে যায় টাইগাররা।

এই ম্যাচ খেলতে নামার আগে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ভারত ছিল পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। ৫ ম্যাচ খেলে জিতেছিল সব কটিতে। সেই দলটা যে হুমকি ছিল তা মেনে নিলেন মুমিনুল, ‘অবশ্যই হুমকি ছিল। একই সঙ্গে মনে হয় আমরা ব্যাটিংয়ে ব্যর্থ হয়েছি। ওদের যে তিনজন বোলার আছে তাদেরকে নিয়ে ভারত এখন বিশ্বের এক নম্বর বোলিং দল। এখানে বড় একটি হুমকি ছিল। আমরাও সেভাবে সুযোগ কাজে লাগাতে পারিনি।’

কিন্তু মুমিনুল এরপর বলছেন, ‘এটি পার্ট অফ লাইফ। আপনার কোনো সময় খারাপ হবে, কোনো সময় ভালো হবে। এটি নিয়ে আমি খুব বেশি চিন্তিত না। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাতে হবে যে, মানুষ যখন সংগ্রাম করে তখন ভালো কিছু আসে বলে আমার কাছে মনে হয়।’

অর্থাৎ ইন্দোরে এভাবে হারলেও নিকট ভবিষ্যতেই ভালো কিছুর আশায় বুঁদ মুমিনুল।

কিন্তু যে হতশ্রী পারফরম্যান্স, এরপর আর স্বপ্ন দেখার কিছু থাকে কি? মুমিনুল অবশ্য সংবাদ সম্মেলনে শুরুতেই বলে দিয়েছেন, ‘আমরা ভালো ব্যাট করিনি। কিন্তু এর মধ্যেও ইতিবাচক দিক আছে। মুশি (মুশফিকুর রহিম) খুব ভালো খেলেছেন দুই ইনিংসেই (৪৩, ৬৪)। লিটন ভালো খেলেছে। মিরাজও ভালো করেছে আজ। আমরা দল হিসেবে খেলতে পারিনি। জুটি করতে পারিনি। এটা খুব ভালো দলীয় পারফরম্যান্স নয়।’

বাংলাদেশ দল ভারত সফর শুরু করেছিল টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে। যে সিরিজের প্রথম ম্যাচেই জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। এরপর টানা দুই ম্যাচে হেরে ১-২ এ সিরিজ হারে। সার্বিকভাবে যে সিরিজে জমজমাট একটা লড়াই হয়েছে।

কিন্তু টেস্টে একেবারেই বিবর্ণ দশা। মুমিনুল এ জন্য দায়ী করছেন খুব বেশি টেস্ট খেলার সুযোগ না পাওয়াকে। ‘আমরা খুব বেশি টেস্ট খেলি না। আপনি যদি দেখেন গত সাত মাসে দুই টেস্ট খেলেছি। পর্যাপ্ত টেস্ট না খেলা একটা মূল কারণ।’- বলেন মুমিনুল।

এই ম্যাচে মাত্র চার বোলার নিয়ে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ। দুজন পেসার ও দুজন স্পিনার। পেসার আবু জায়েদ রাহির পারফরম্যান্স ছিল নজরকাড়া। নিয়েছেন ৪ উইকেট।

ভারতীয় পেসাররা অবশ্য সবচেয়ে বেশি দাপট দেখিয়েছে। মোহাম্মদ শামি, উমেশ যাদব, ইশান্ত শর্মাদের দেখে বাংলাদেশের পেসারদের শেখার ছিল অনেক। মুমিনুল বলছেন, ‘সব দিক থেকেই তারা শিখছে আমার মনে হয়। নতুন বল কীভাবে ব্যবহার করতে হয়, কীভাবে রিভার্স করাতে হয়, কীভাবে জায়গায় ফেলতে হয়। আমার মনে হয় অনেক কিছু শিখেছে তারা।’

শুক্রবার ইডেনে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। দিবারাত্রির ম্যাচটিতে চ্যালেঞ্জ থাকছে আরো বেশি। মুমিনুল অবশ্য সব ভুলে সামনে তাকানোর প্রত্যয়ের কথা বললেন, ‘আমরা এই ম্যাচ ভুলে পরেরটা নিয়ে ভাবতে চাই। আরেকটা সুযোগ পাব কলকাতায়। সেটা কাজে লাগাতে চাইব।’

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech