গামিনীকে রেখেই আনা হচ্ছে আরো ২ বিদেশি কিউরেটর - খেলাধূলা - Premier News Syndicate Limited (PNS)

গামিনীকে রেখেই আনা হচ্ছে আরো ২ বিদেশি কিউরেটর

  


পিএনএস ডেস্ক: ফের রক্ষা পেয়ে গেলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কিউরেটর গামিনী ডি সিলভা। তাকে রেখেই আরও দুই বিদেশি কিউরেটর আনার চিন্তা করছে বিসিবি।

বিপিএলের কয়েকটি আসরে টানা বড় রানের দেখা মেলেনি। সদ্যগত ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট চেয়েও পায়নি বাংলাদেশ দল। হারের পেছনে উইকেটকে দায়ী করেছেন অনেকেই। তবুও গামিনীর উপরই আস্থা রাখছে বিসিবি। বোর্ড সূত্র বলছে, মিরপুর ও চট্টগ্রাম ভেন্যুর জন্য ভারত থেকে কিউরেটর আনা হচ্ছে।

শ্রীলঙ্কান গামিনী প্রধান কিউরেটর হিসেবে কাজ করছেন ২০১০ সাল থেকে। গতকিছুদিন তাকে ঘিরে সমালোচনা বেড়েছে সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে। সোমবার তো বিসিবিপাড়ায় গুঞ্জনই ছড়ায় গামিনীকে আর কিউরেটর হিসেবে রাখা হচ্ছে না। পরে সেটি এক লহমায় উড়িয়ে দিলেন বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস।

‘গামিনীকে সরানো হচ্ছে কিংবা তিনি চলে যাচ্ছেন এমন কোন কথা শুনিনি। বোর্ডেও এসব নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি। ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির সভায়ও এনিয়ে কোন কথা হয়নি। বিসিবির প্রধান নির্বাহীকে প্রশ্ন করেছিলাম মিডিয়াতে অনেককিছু আসছে, সেও বিষয়টি নিয়ে কিছুই জানে না বলেছে।’

মূলত হোম অব ক্রিকেটের মাঠ সংস্কারের পর থেকেই গামিনীকে ঘিরে বিতর্ক বাড়তে থাকে। মাঠ সবুজের গালিচা তকমা হারিয়ে বাদামী রং ধারণ করেছিল নতুন করে সাজানোর পর। আউটফিল্ডের অবস্থা বাজে হয়ে পড়েছিল। সেসময় সিরিজ খেলতে আসা অস্ট্রেলিয়া আউটফিল্ড নিয়ে প্রকাশ্যেই অভিযোগ জানায়। তাতে মাঠের ভাগ্যে জোটে দুটি ডিমেরিট পয়েন্টও।

প্রধান কিউরেটর হিসেবে গামিনীর যোগ্যতা নিয়ে তাতে প্রশ্ন উচ্চকিত হয় আরও। পরে গত বিপিএলে উইকেট নিয়ে সমালোচনা করে জরিমানা গুনেছেন তামিম। মাশরাফী ও বেশকিছু বিদেশী ক্রিকেটারও উইকেটের সমালোচনা করেন। ত্রিদেশীয় সিরিজে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টাইগাররা শিরোপা হাতছাড়া করলে কিউরেটরের দিকে অভিযোগের আঙুল ওঠে আবারও। নিজ দেশ শ্রীলঙ্কাকে উইকেট সম্পর্কে আগাম তথ্য দিয়েছেন গামিনী, এমন অভিযোগও ওঠে। এসব অভিযোগের কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে বিসিবি।

তার মাঝেই এল নতুন দুই কিউরেটরের খবর। প্রশ্ন উঠছে তারা কোথায় কাজ করবেন? তাদের যেহেতু মিরপুর ও চট্টগ্রামের জন্যই আনা হচ্ছে। দুজায়গাতেই দুজন কিউরেটর কাজ করে চলেছেন। সেটির সমাধান হতে পারে এভাবে, নতুনদের একজন কাজ করতে পারেন মিরপুরেই, গামিনীর সঙ্গে। অন্যজন চট্টগ্রামে। তখন বন্দরনগরীর কিউরেটর জাহিদ রেজা বাবুকে সরিয়ে দেয়ার কথাও শোনা যাচ্ছে।

বিসিবি পরিচালকদের আস্থাভাজন বলেই টিকে যাচ্ছেন গামিনী। জাতীয় দলের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনও এই লঙ্কানের পক্ষে সাফাই গাইলেন বরাবরের মতই।

‘গামিনীকে নিয়ে অনেক কথা হয়। ওতো চাকরি করে। ওকে বলা হয়েছে বোর্ড থেকে, সেভাবেই উইকেট বানিয়েছে। ওর দোষ কী? ওর চাকরি খাওয়ার কী দরকার হয়ে গেছে! ও কী ভাল কাজ করেনি? হাথুরুসিংহে থাকার সময় যেভাবে উইকেট চেয়েছে বানিয়ে দেয়নি? এখনকার উইকেটও আমরাই চেয়েছি, গামিনী ইচ্ছেয় বানিয়ে দেয়নি। ও একটা বিদেশি মানুষ বলে চাপিয়ে দিয়ে বললাম শুলে চড়াও, মাইরা ফালাও, এটা ঠিক না। আমরা হেরেছি একটাই কারণে, ভাল ক্রিকেট খেলিনি।’

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech