করোনাভাইরাস থেকে রক্ষার মালিক আল্লাহ: আওয়ামী ওলামা লীগ

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনাভাইরাস দেয়ার এবং তা থেকে রক্ষার মালিক আল্লাহতালা। তাই করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের নেতারা।

বক্তারা বলেন, করোনাভাইরাস সম্পর্কে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন করোনাভাইরাস নিয়ে কোন প্যানিক তৈরি করবেন না। ধর্মব্যবসায়ীরা উদ্দেশ্যমূলকভাবে কঠিন প্যানিক তৈরি করছে। অথচ তারা এতদিন হক্কানী-রব্বানী ওলী এবং পবিত্র মাজার শরীফ থেকে মানুষকে বিমুখ করার জন্য জোর গলায় প্রচার করতো, সব কিছু দেয়ার মালিক একমাত্র মহান আল্লাহ পাক। কিন্তু করোনাভাইরাস থেকে বাঁচানোর মালিক যে মহান আল্লাহ পাক তারা এখন আর তা প্রচার করছে না।

রোববার (২২ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে করোনাভাইরাস নিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগসহ সমমনা ১৩টি ইসলামীক দলের এক মানববন্ধনে বক্তারা এসব বলেছেন।

তারা বলেন,‘করোনাভাইরাসকে ব্যবহার করে একটা শ্রেণি দেশে অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করে দেশে দুর্ভিক্ষ তৈরির পায়তারা করছে। রাষ্ট্রকে ব্যর্থ প্রমাণ করে সরকারকে পদত্যাগের পরিস্থিতি তৈরি করতে চাইছে। সর্বোপরি মসজিদ, মাহফিল বন্ধ করে সরকারের বিরুদ্ধে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের খেপিয়ে তুলতে চাইছে। রহমত শুন্য করে দেশ ও সরকারকে খোদায়ী গযবের দিকে ঠেলে দিতে চাইছে।

বক্তারা বলেন, করোনাভাইরাস দেয়ার এবং তা থেকে রক্ষার মালিক মহান আল্লাহ পাক। তাই করোনা ভাইরাস নিয়ে প্যানিক নয়। করোনা ভাইরাস মুসলমানদের জন্য কোন সমস্যা নয়। আলেম সমাজকে এসব কথা বেশি বেশি প্রচার করতে হবে।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে করোনার অজুহাতে পবিত্র মসজিদসমূহে জামায়াত নিষিদ্ধ করা, মহাসম্মানিত আযান পরিবর্তন করা, পবিত্র মসজিদসমূহে যেতে নিরুৎসাহিত করলে ওলামালীগসহ ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও হাক্কানী-রব্বানী আলেম সমাজ তা শক্তভাবে প্রতিহত করবে। করোনাসহ সকল প্রকার আযাব-গযব থেকে বাঁচতে হলে বেশি বেশি পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ করতে হবে এবং সুন্নতী খাদ্য গ্রহণ করতে হবে।

তারা আরও বলেন, খোদায়ী রহমতের পথগুলো খোলা রাখা তথা মসজিদ, জুময়া, গণজমায়েতে পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ এবং তওবা ও দোয়া করা গযবী করোনা ভাইরাস ব্যবস্থাপনায় রাষ্ট্র ও নাগরিকের সাংবিধানিক দায়িত্ব ও কর্তব্য। করোনা ভাইরাসের অজুহাতে বেশি বেশি কেনা-কাটা, মজুদদারী, মুনাফাখোর, সিন্ডিকেট দৌরাত্ম, কৃত্রিম দুর্ভিক্ষ রোধে সরকার এবং জনগণকে একসাথে জিহাদে নামতে হবে।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, আওয়ামী ওলামা লীগের সভাপতি আলহাজ্জ মাওলানা মুহম্মদ আখতার হুসাইন বুখারী, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ কাজী মাওলানা মুহম্মদ আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী, সম্মিলিত ইসলামী গবেষণা পরিষদের সভাপতি আলহাজ্জ হাফেজ মাওলানা মুহম্মদ আব্দুস সাত্তার, মাওলানা মুহম্মদ শওকত আলী শেখ ছিলিমপুরী, দপ্তর সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ, লায়ন আলহাজ্জ মাওলানা মুহম্মদ আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন