আবরার হত্যায় জামায়াতের নিন্দা প্রকাশ

  



পিএনএস ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী।

সংগঠনটির সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এক বিবৃতিতে বলেন, ‘বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদকে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। এ ঘটনার নিন্দা জানানোর কোনো ভাষা নেই।’

তিনি বলেন, ‘চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, দুর্নীতিবাজ ছাত্র নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডারদের অপরাধের মাত্রা সীমা ছাড়িয়ে গেছে। দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাত্রলীগ ক্যাডারদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। সরকারের সমালোচনা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় আবরার ফাহাদের মত নিরীহ নিরপরাধ মেধাবী ছাত্রকে হত্যার মাধ্যমে ছাত্রলীগ প্রমাণ করেছে যে, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে সাধারণ শিক্ষার্থীদের জান-মালের কোনো নিরাপত্তা নেই। ইতোপূর্বে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত কোমলমতি স্কুল শিক্ষার্থী এবং কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারী সাধারণ শিক্ষার্থীরাও ছাত্রলীগের হামলা থেকে রেহাই পায়নি। ছাত্রলীগের খুন, ধর্ষণ, সন্ত্রাসী কার্যক্রম, চাঁদাবাজি, টেন্ডার বাণিজ্য অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। ’

জামায়াত মুখপাত্র বলেন, ‘লাগামহীন চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি ও দুর্নীতির কারণে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক বহিষ্কৃত হওয়ার পরেও মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনা প্রমাণ করে যে, তাদের বহিষ্কার সত্ত্বেও ছাত্রলীগ ক্যাডারদের চরিত্র একটুও বদলায়নি। তাদের বহিষ্কার আইওয়াশ মাত্র। মূলত দলীয় আশকারা পেয়েই ছাত্রলীগ সারা দেশের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের নৈরাজ্যকর ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। ’

তিনি বলেন, ‘আবরার ফাহাদ হত্যায় জড়িত ছাত্রলীগের সকল ক্যাডারকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’

পিএনএস/ হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech