ঢাকা-নারায়ণগঞ্জে বাস চালু নিয়ে দ্বন্দ্বে মালিকরা!

  

পিএনএস ডেস্ক: আগামী ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত সারাদেশে গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে, সঠিক দিক নির্দেশনা না থাকায় এখনও পরিবহন চালুর ব্যাপারে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে কাজ করছে মালিকদের মাঝে। অনেক মালিকের অভিযোগ বিষয়টি পরিস্কার নয়, ‘কিভাবে বা কোনে কোন নিয়ম মেনে সীমিত সংখ্যাক যাত্রী নিয়ে বাস রাস্তায় চালাতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) এমনটাই জানিয়েছে মালিক সমিতির নেতারা। এর আগে ২৭ মে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন আগামী ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত চলাচল করতে পারবে বলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন।

করোনা ভাইরাস এর সংক্রমণ রোধে গত ২৩ মার্চ সরকার প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। পরে দ্বিতীয় দফায় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত, তৃতীয় দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত এবং চতুর্থ দফায় ৫ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি বর্ধিত করা হয়।

এরপরও পরিস্থিতির উন্নত না হওয়ায় পঞ্চম দফায় ১৬ মে এবং সর্বশেষ ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি বৃদ্ধি করে সরকার। এ পুরোটা সময় জুড়েই গণপরিবহন বন্ধ ছিল।

ব্যাপারটি নিয়ে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রোডের বন্ধন পরিবহনের মালিক সমিতির সভাপতি আয়ুব আলী বলেন, ‘কিভাবে পরিবহন পরিচালনা করতে হবে? সে বিষয়ে এখনও কোন দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। যদি সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে চলাচলের নির্দেশনা দেয়, তাহলে টিকেটের মূল্য বৃদ্ধি পাবে; অন্যদিকে, অল্প সংখ্যক গাড়ি চলতে দিলে সকল মালিকই চাইবে গাড়ি নামাতে। না হলে চালানোই সম্ভব হবে না।’

অপরদিকে, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রোডের বিআরটিসি পরিবহন পরিচালানার সহযোগী প্রতিষ্ঠান উৎসব পরিবহন কর্ণধার কামাল মৃধা জানান, এখনও কোন নির্দেশনা পাইনি। যে নির্দেশনা দেওয়া হবে, তার উপরেই পরবর্তী প্রস্তুতি নেওয়া হবে। সীমিত সংখ্যক যাত্রী নিয়ে চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হলে সরকার লসে পড়বে। তবে, যাই হউক, আমরা সরকারের নির্দেশনা মেনেই চালাবো।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন