সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি

  

পিএনএস ডেস্ক : ভারতে এনআরসি ইস্যুতে কথিত বাংলাদেশি আতঙ্ক চলছে। কিছু মানুষকে ইতোমধ্যেই কথিত বাংলাদেশি অ্যাখ্যা দিয়ে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিএসএফ’র সদস্যরা। সীমান্তের এ নিয়ে সতর্ক রয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবির সদস্যরা। আরও নজরদারি বাড়াতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

বৈধ কাগজপত্র ছাড়া কেউ যাতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে মন্ত্রণালয়। চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে ঝিনাইদহ এবং রাজশাহীর বিভিন্ন সীমান্তে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির সাথে স্থানীয় লোকজন কমিটি গঠন করে রাতে সীমান্ত পাহারা দিচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। সীমান্ত এলাকায় বসবাসরত মানুষদের নিয়ে নিয়মিত মতবিনিময় করে জনসচেতনতা বাড়ানোর কাজ করছে বিজিবি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ‘বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমে অবৈধ অনুপ্রবেশ নিয়ে নানান খবর প্রকাশ হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতেই এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। কোন বৈধ কাগজপত্র ছাড়া সীমান্ত দিয়ে কোনও বিদেশিকে বাংলাদেশ গ্রহণ করবে না।’

বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন সময় ভারতের সাথে আলোচনা করেছেন। ভারত বাংলাদেশকে আশ্বস্ত করেছে বলেও তিনি জানান।

আব্দুল মোমে বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমাদের অনেক আলোচনা হয়েছে। ভারত সরকার আমাদের বার বার অঙ্গীকার করেছে, আমাদের আশ্বাস দিয়েছে যে এই ইস্যু বাংলাদেশকে কোনোভাবে প্রভাবিত করবে না। এনআরসি তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং আমরা ভারত সরকারকে বিশ্বাস করি।’

এর আগের এনআরসি আতঙ্কে সীমান্তে অনুপ্রবেশ নিয়ে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘ভারতের আসাম থেকে বাংলাদেশে পুশইনের খবরে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। বাংলাদেশের নাগরিক ছাড়া কাউকে দেশে ঢুকতে দেয়া হবে না। যারা আসছে তারা বাংলাদেশের নাগরিক হলে আমরা রিসিভ করতে পারি। নইলে কোনোক্রমে গ্রহণ করব না।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা হয়তো দেখেছেন কিছু কিছু বাঙালি, এরা বাংলাদেশি কি-না আমি সঠিকভাবে এখনও নিশ্চিত নই। বাঙালিদের ভেতরে ঢোকানোর চেষ্টা করেছেন। আমাদের বিজিবি কয়েক জায়গা থেকে এদেরকে ঢুকতে দেয়নি, অ্যালাউ করেনি। এদের সংখ্যা হাজার হাজার নয়, কয়েকশ।’

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech