সন্দেহে পূর্বে নাশকতায় জড়িতরা: রেলমন্ত্রী

  

পিএনএস ডেস্ক : রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে সিরাজগঞ্জের মুলবাড়িতে যে মহলটি কয়েক বছর আগে ট্রেনে প্রকাশ্যে আগুন দিয়েছিল, সেই মহলটি আবারও উল্লাপাড়ায় রংপুর আন্তঃনগর ট্রেনে স্যাবটাজ ঘটালো কি-না, তা উড়িয়ে দেওয়া যায় না। ইঞ্জিনে আগুন লাগামাত্রই দ্রুত তা অন্যান্য বগিতে ছড়িয়ে পড়লো, সেটিও সন্দেহের বিষয়। এটিও খতিয়ে দেখতে হবে। এ ঘটনায় তদন্ত হচ্ছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লাপাড়া ষ্টেশনে ঢাকা-লালমনিরহাটগামী রংপুর আন্তনগর ট্রেনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, যতদূর জেনেছি এখানে সিগন্যালের অবস্থা যথাযথ ছিল। সম্প্রতি ইঞ্জিন ছাড়া ১৪টি বগিই অনেক টাকা দিয়ে বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়েছে। যেগুলোর স্থায়িত্বকাল কমপক্ষে ২০ বছরের বেশী হবে। জয়দেবপুর থেকে ঈশ্বরদী পর্যন্ত রেলপথ সিঙ্গেল রুট। আগামীতে এটি ডুয়েল করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। পাশাপাশি সিরাজগঞ্জ-ঈশ্বরদী রেলপথে দু'টি ভঙ্গুর ও জীর্নশীর্ণ সেতুও রয়েছে, সেগুলোও খুব শিগগিরই নতুন করে নির্মান করারও পরিকল্পনা রয়েছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এও জেনেছি, রেলের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তার আত্বীয় আছেন যিনি সিরাজগঞ্জ-ঈশ্বরদী সেকশনে রেলপথের ঠিকাদার ছিলেন। যদি রেলপথ সংস্কার কাজে ওই ঠিকাদারের কোনো গাফিলতি ও দায়িত্বে অবহেলার বিষয় খুঁজে পাওয়া যায়, তাহলে সেটিও ছাড় দেওয়া হবে না।

এ সময় রেলসচিব মোফাজ্জল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব ফারুকউজ্জামান, রেলমহাপরিচালক মো. শামসুজ্জামামান, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গুহ, প্রধান প্রকৌশলী এ.এস.এম মাসুদর রহমান, ডিআরএম পাকশী মিজানুর রহমান, উল্লাপাড়ার উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী শফিকুল ইসলাম, মেয়র এস.এম.নজরুল ইসলাম প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech