আইএসের বাংলা ভিডিওবার্তায় আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই: ডিএমপি

  


পিএনএস ডেস্ক: বাংলাভাষায় ধারণ করা একটি ভিডিওবার্তায় নতুন হুমকি দিয়েছে আন্তর্জাতিক জঙ্গিবাদী সংগঠন আইএস (ইসলামিক স্টেট)।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সরকারি অফিস আদালত, আমেরিকান ও হিন্দু-বৌদ্ধ নাগরিক, গণতান্ত্রিক সভা-সমাবেশ, গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলগুলোর অফিস এবং ভোট কেন্দ্রগুলোতে হামলা করা হবে বলে হুমকি দেয়া হয় ওই ভিডিওবার্তায়।

তবে এ ভিডিওবার্তায় আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। ডিএমপি কর্তৃপক্ষ বলছে, এসব হুমকিতে উদ্বিগ্ন বা আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

তবে আইএসের নতুন ভিডিওবার্তাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তারা।

আইএসের খবর প্রচারকারী বার্তা সংস্থা আমাক নিউজ এজেন্সির বরাত দিয়ে রোমভিত্তিক সংগঠন আইএফআই মনিটরিং তার ওয়েব সাইটে প্রকাশ করে ভিডিওবার্তাটি।

বাংলায় ধারণ করা আট মিনিট ৯ সেকেন্ডের ওই নতুন ভিডিওবার্তায় দেখা গেছে, তথাকথিত আইএস (ইসলামিক স্টেট) নেতা আবু বকর আল-বাগদাদির নেতৃত্ব মেনে নিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণায় ৪ জঙ্গি শপথ নিচ্ছে। তাদের সবার মুখ ঢাকা।

২০১৯ সালে আইএস বাংলাদেশে ৪টি অভিযান চালিয়েছে বলেও এতে উল্লেখ করা হয়।ভিডিওতে হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা, পুলিশি ভ্যানে হামলাসহ বাংলাদেশে বিভিন্ন জঙ্গি হামলার দৃশ্য দেখানো হয়েছে।

এদিকে জঙ্গিবাদী তৎপরতার খবর প্রচারকারী প্রতিষ্ঠান সাইট ইন্টিলিজেন্স জানিয়েছে, আইএস এবার বাংলাদেশে তাদের পরিধি বিস্তার করতে যাচ্ছে। এ জন্য তারা দেশটিতে সদস্য সংগ্রহ অভিযানে নেমেছে।

এ বিষয়ে ডিএমপির পক্ষ থেকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মুখপাত্র এবং উপকমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, তথাকথিত আইএসের ভিডিওবার্তাটি আমাদের নজরে এসেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কারা, কেন, কী কারণে এমন বার্তা ছড়াচ্ছে, তা অচিরেই প্রকাশ করব।

তিনি যোগ করেন, দেশবাসীর এতে উদ্বিগ্ন বা আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

সারাদেশে যথেষ্ঠ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া আছে জানিয়ে তিনি বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও তথাকথিত আইসের বিরুদ্ধে আমাদের কঠোর নজরদারি চলছে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহেও আইএসের সমর্থক সন্দেহে ৫ জনকে আটক করে ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
এদিকে গত সপ্তাহেই ভারতের পশ্চিমবঙ্গে পুলিশ জেএমবি’র ৩ সদস্যকে আটক করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো।

প্রসঙ্গত সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।২০১৬ সালে গুলশানে হলি আর্টিসান হামলার পর জঙ্গিবাদ নির্মূলে কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট গঠন করা হয়।

পিএনএস/ হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech