পুলিশ প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীকে বিয়ে দিলেন স্বামী!

  

পিএনএস ডেস্ক : বছর দুয়েক আগে ফেসবুকের মাধ্যমে স্থানীয় থানায় কর্মরত এক পুলিশ সদস্যের সঙ্গে পরিচয় হয় দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূর। এরপর বাড়ে ঘনিষ্ঠতা। এরই সুবাদে গৃহবধূর স্বামী টোটোচালকের অনুপস্থিতিতে নিয়মিত তার বাড়িতে যেতেন ওই পুলিশ সদস্য।

একপর্যায়ে বিষয়টি জানতে পারেন টোটোচালক স্বামী। জানতেন পাড়ার লোকজনও। বলতে গেলে যুবকের স্ত্রীর সঙ্গে ওই পুলিশ সদস্যের সাক্ষাৎ ছিল ওপেন সিক্রেট।

আনন্দবাজার জানায়, বৃহস্পতিবার একইভাবে গৃহবধূর বাড়িতে যান ওই পুলিশ সদস্য। বিষয়টি টের পেয়ে পাড়ার লোকজন ঘরের দরজায় বাইরে থেকে ছিটকিনি তুলে দেন। পরে খবর দেওয়া হয় ওই গৃহবধূর স্বামীকে।

স্বামী গিয়ে ওই পুলিশ সদস্যের সঙ্গে নিজের স্ত্রীর ‘বিয়ে’ দিয়ে দেন। ওই পুলিশ সদস্য টোটোচালকের স্ত্রীকে শাঁখা, সিঁদুর পরিয়ে দেন সবার সামনে। যদিও এই ‘বিয়ে’ আইনসম্মত নয়।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বংশীহারি থানার ডিটল এলাকায় চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ঘটনার দিন দুপুরেও টোটোচালক বাড়িতে ছিলেন না। ওই পুলিশ সদস্য মোটরসাইকেল নিয়ে তাদের বাড়ি যান। এলাকার মানুষ টের পেয়েই বাড়ি ঘিরে ফেলেন। তারা টোটোচালক যুবককে খবর দেন। তিনি ফিরলে দরজা খোলার পরে ক্ষোভে ফেটে পড়ে জনতা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় বংশীহারি থানার বিপুলসংখ্যক পুলিশ। পুলিশ ওই যুগলকে নিয়ে যেতে চাইলে ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী পুলিশের গাড়ি আটকে দেয়।

এরপরই গৃহবধূর স্বামী নিজে দাঁড়িয়ে থেকে নিজের স্ত্রীর সঙ্গে তার পরকীয়া প্রেমিকের ‘বিয়ে’ দেন। পুলিশের গাড়িতেই ‘বিয়ে’ হয় প্রেমিক যুগলের। প্রথমে রাজি না থাকলেও পরে গৃহবধূকে শাঁখা, সিঁদুর পরিয়ে দেন প্রেমিক পুলিশ। এরপর দুজনকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

তার স্বামী জানান, স্ত্রীর পায়ে ব্যথা, তাই ওষুধ দিয়ে টোটো নিয়ে বেরিয়েছিলেন। হঠাৎ তার ভাই ফোন করে তাকে বাড়িতে আসতে বলেন। কারও কিছু হয়েছে ভেবে তড়িঘড়ি বাড়ি আসেন তিনি। এসে দেখেন ঘরে তালা।

প্রতিবেশী দীপন চক্রবর্তী বলেন, ‘‘এলাকারই এক বধূর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বংশীহারি থানার ওই পুলিশ সদস্যের। এলাকার লোক এতে ক্ষুব্ধ ছিল।’’

স্থানীয় মহকুমা পুলিশ অফিসার বিপুল বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech