ফ্রান্সে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু সংখ্যা সঠিক নয়, জনমনে আতঙ্ক

  

পিএনএস (আব্দুস সোবহান, ফ্রান্স থেকে) : ফ্রান্সে (২ এপ্রিল একদিনে ১৩৫৫ জন মারা যাননি। এখানে একটু গানিতিক জটিলতা আছে।শুধু (২ এপ্রিল) ফ্রান্সে মারা গেছেন ৪৭১ জন। ফ্রান্স মিডিয়া সূত্রে জানা গেছে, মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন নার্সিং হোমে যারা মারা গেছেন তাদের সংখ্যা হিসেবে আসেনি। এই ৮৮৪ জনকে (২ এপ্রিল) হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এজন্য(২ এপ্রিল) সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৩৫৫ জনে। এ নিয়ে বাংলাদেশি প্রবাসীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। যার প্রভাব দেশে থাকা প্রবাসীদের পরিবার গুলো রয়েছেন দুচিন্তায়।

করোনা ভাইরাসে ভয়াবহ অবস্থা বিরাজ করছে ফ্রান্সে। দিনদিন পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি হচ্ছে। এ নিয়ে সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৩৮৭ জন।

ফ্রান্সে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৯ হাজার ১০৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ১১৬ জন। সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন ১২ হাজার ৪২৮ জন।

এছাড়া বর্তমানে ফ্রান্সে ৪১ হাজার ২৯০ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩৪ হাজার ৮৯১ জনের অবস্থা সাধারণ। বাকি ৬ হাজার ৩৯৯ জনের অবস্থা গুরুতর, যাদের অধিকাংশই আইসিউতে রয়েছেন।

এছাড়া বৃহস্পতিবার(২ এপ্রিল) কুলাউড়া এক প্রবাসী করোনা পজেটিব খবর পাওয়া গেছে। বর্তমানে তিনি হসপিটালে চিকিৎসাধীন আছেন।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসে পুরো বিশ্ব নিরব, নিস্তব্ধ। বিশ্ব গ্রাম ধারণায় যেখানে রাত-দিনের পার্থক্য করাই দুষ্কর ছিল। সেখানে সমগ্র বিশ্বই ঘরবন্দী। চারদিক শুনশান, জনশূন্য। যেন পৃথিবী আজ এক মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে। বিশ্বাস করা কষ্টসাধ্য হলেও বিশ্বজুড়ে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার ৯৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এ যাবৎ একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৩ হাজার ১৬৬।

এই ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৯ হাজার ৭৪৭ জন। এটিও একদিনে আক্রান্তের সংখ্যায় সর্বোচ্চ। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ১৪ হাজার ৯৪৩ জন। এর মধ্যে ২ লাখ ১২ হাজার ১৮ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন।


পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন