পাঁচ বছরের মধ্যে তৃতীয় দফায় ভোট দিচ্ছেন ব্রিটিশরা

  


পিএনএস ডেস্ক: ব্রেক্সিটকে কেন্দ্র করে পাঁচ বছরেরও কম সময়ের মধ্যে তৃতীয় দফায় জাতীয় নির্বাচনে নিজেদের নেতা বাছাই করতে ভোটকেন্দ্রে যাচ্ছেন ব্রিটিশ ভোটাররা।

ইংল্যান্ড, ওয়েলস, স্কটল্যান্ড ও নর্দান ইরিল্যান্ডে সাড়ে ছয়শর বেশি আসনে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল ৭টা থেকে ভোটগ্রহণ চলছে।

শুক্রবার সকালের প্রথম কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নির্বাচনের অধিকাংশ ফল ঘোষণা করা হবে বলে খবরে জানা গেছে।

বিবিসির খবরে জানা গেছে, ২০১৭ সালে নিউক্যাসল আসনে প্রথমবারের মতো ভোটগ্রহণের এক ঘণ্টার ভেতর ফল ঘোষণা করা হয়েছিল।

এর আগে ২০১৫ ও ২০১৭ সালে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও দুইবারই নির্বাচিত পার্লামেন্ট পূর্ণ মেয়াদ পার করতে পারেনি। প্রায় ১০০ বছরের মধ্যে এই প্রথম ডিসেম্বরে ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে।

সারাদিন ভোট গ্রহণ শেষে ২২:০০ জিএমটিতে ভোট শেষ হবে, সঙ্গে সঙ্গেই ভোট গণনা শুরু হবে।

প্রত্যেকটি আসনে সর্বাধিক ভোট পাওয়া প্রার্থীই নির্বাচিত হবেন। এভাবে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সের ৬৫০ জন এমপিকে বেছে নেয়া হবে।

ঐতিহ্যগতভাবে যুক্তরাজ্যে প্রতি চার অথবা পাঁচ বছর পর সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু অক্টোবরে পার্লামেন্ট সদস্যরা অন্য বহু সময়ের মতো এবারও আগাম নির্বাচনের পক্ষে ভোট দেয়ায় ডিসেম্বরে নির্বাচন হচ্ছে।

১৯৭৪ সালের পর এই প্রথম শীতকালে এবং ১৯২৩ সালের পর প্রথমবারের মতো ডিসেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ব্রিটিশ নাগরিক, কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর যোগ্য নাগরিকরা ও আয়ারল্যান্ড রিপাবলিকের ১৮ বছর বা এর বেশি বয়সী ভোট দেয়ার জন্য নথিভুক্ত ব্যক্তিরা ভোট দিতে পারবেন।

একজন ভোটার যে কোনো একজন প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন, অন্যথায় তার ভোট গণনায় ধরা হবে না।

এবারের নির্বাচনে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের নেতৃত্বাধীন রক্ষণশীল দল সবচেয়ে বেশি আসন পাবে বলে ভোটপূর্ব জরিপের ফলাফলগুলোতে বলা হয়েছে।

প্রধান বিরোধীদল লেবার পার্টির আসনে আগেরবারের চেয়ে কিছুটা কমলেও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসন তারাই পাবে। স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি ও লিবারেল ডেমোক্রেট পার্টি উভয়েরই অল্প কিছু আসন বাড়বে বলে আভাস দেয়া হয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন