এনআইডি কিংবা গহনা বন্ধক রেখে পেঁয়াজ ঋণ!

  

পিএনএস ডেস্ক : দেশের বাজারে পেঁয়াজের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে সরকারের নানা উদ্যোগেও অস্থিরতা কমছে না। বাজারভেদে ২৪০ টাকা থেকে ৩০০ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। মূলত ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেওয়ার পর এই অস্থিরতা শুরু হয়। ফলে অনেকেই এই সংকটের জন্য ভারতকে দায়ী করছেন। কিন্তু তারা কি জানেন ভারতে পেঁয়াজের বাজারের অবস্থা কী?

ভারতেও পেঁয়াজের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে। দেশটির সাধারণ মানুষ বিভিন্নভাবে প্রতিবাদ করছেন। কেউ স্বর্ণের দোকানে কাচের ভিতর পেঁয়াজ রাখছেন, কেউ বন্ধুর বিয়েতে পেঁয়াজ উপহার দিচ্ছেন। এবার উত্তর প্রদেশের একদল লোক ঋণ হিসেবে পেঁয়াজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ভারতের কোনো জায়গায় ১০০ টাকার কমে বিক্রি হচ্ছে না পেঁয়াজ। কোথাও কোথাও তো প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ১২০ টাকাও হয়ে গেছে।

উত্তর প্রদেশের বারাণসিতে এবার ঋণ হিসেবে মিলছে পেঁয়াজ। তবে তার জন্য জমা রাখতে হচ্ছে আধার কার্ড।

আধার কার্ড হলো ভারত সরকারের Unique Identification Authority of India দ্বারা প্রদত্ত প্রত্যেক ভারতীয় নাগরিকের জন্য একটি বিশেষ নম্বর যুক্ত পরিচয় পত্র। এই কার্ড নাগরিকের পরিচয় ও ঠিকানার প্রমাণপত্র। তবে কেউ যদি কার্ড জমা না দিতে চান তাহলে রুপার গহনা জমা দিলেও হবে।

সাধারণ মানুষ যাতে পেঁয়াজ পেতে পারে সেজন্য বারাণসিতে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে সেখানকার সমাজবাদী পার্টির যুব শাখা।

সমাজবাদী পার্টি কর্মীরা সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আধার কার্ড জমা রেখে বা রুপার গহনা বন্ধক রেখে পেঁয়াজ দেওয়া হচ্ছে।

অভিনব এই উদ্যোগ এলাকায় বেশ সাড়া ফেলেছে। কারণ উত্তর প্রদেশে পেঁয়াজের মূল্য এর আগে কখনো এত বেশি হয়নি। সেখানে বর্তমানে পেঁয়াজ কেজিতে ১০০ রুপি ছাড়িয়েছে।

সমাজবাদী দলের কর্মীরা জানিয়েছেন, তাদের উদ্যোগ বৃথা যায়নি। মানুষ বুঝতে পারছে কেন এই কাজ আমরা করেছি। পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধিতে তাদের পক্ষ থেকে এমন প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech