কিশোরের শিরশ্ছেদ আদেশ বাতিলে সৌদিকে অ্যামনেস্টির অনুরোধ

  

পিএনএস ডেস্ক: মুরতাজা কুরেইশ নামের এক শিয়া মতাবালম্বী তরুণকে শিরশ্ছেদের আদেশ দিয়েছে সৌদি আরব। ওই কিশোরের কিছু কার্যক্রমকে দেশদ্রোহী সাব্যস্ত করে তাকে কারাগারে রাখা হয়েছে। আটকের সময় তার বয়স ছিল ১৩ বছর। তার শিরশ্ছেদ থেকে মুক্তি দিতে সৌদি আরবের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এ খবর দিয়েছে আল-জাজিরা।

গত বছরের আগস্ট মাসে সৌদি আরব কুরেইরিশকে শিরশ্ছেদের নির্দেশ দেয়। ২০১১ সালে তার বড় ভাইকে হত্যার প্রতিবাদে একটি সরকারবিরোধী মিছিল হয়। তাতে যোগ দেয়ায় মুরতাজা কুরেইরিশকে অভিযুক্ত ও মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। সে সময় তার বয়স ছিল মাত্র ১০ বছর।

২০১১ সালে সিএনএনের প্রকাশ করা এক ফুটেজে দেখা যায়, কুরেইরিশ একটি বাইসাইকেলে করে সৌদি সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। ২০১৪ সালে বাহরাইনে পালিয়ে যাওয়ার সময় তার পরিবারসহ তাকে আটক করে সৌদি আরবের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা।

এরপর থেকে তাকে দাম্মাম শহরের পূর্বাংশে অবস্থিত জুভেনাইল জেলে আটকে রাখা হয়েছে। আটকের ৪ বছরের মধ্যে তার সঙ্গে কোনো আইনজীবীর দেখা করার সুযোগ দেয়া হয়নি। অ্যামনেস্টি জানিয়েছে, আটকের পর কুরেইরিশের ওপর চরম নির্যাতন চালানো হয়েছে। তাকে মিথ্যা প্রলোভন দেখানো হয় যে, যদি সে তার অপরাধ স্বীকার করে নেয় তবে তাকে ছেড়ে দেয়া হবে। এখনো এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি সৌদি কর্তৃপক্ষ।

দীর্ঘদিন ধরেই সংখ্যালঘু শিয়া সমপ্রদায়ের ওপর তীব্র দমন-পীড়ন চালিয়ে আসছে সৌদি আরব। এ বছরের এপ্রিলে ৩৭ জনকে কথিত সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে শিরশ্ছেদ করা হয় দেশটিতে। এরমধ্যে ৩৫ জনই ছিলেন শিয়া সমপ্রদায়ের।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech