ফুসফুসের ক্যান্সার থেকে বাঁচাবে চার উপাদান

  

পিএনএস ডেস্ক :ধূমপানে আসক্তরাই বেশি ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। জানেন কি? দীর্ঘমেয়াদি তামাক সেবনের ফলেই ফুসফুসের ক্যান্সারে ৮৫ শতাংশ মানুষই ভোগেন। বাকি ১০ থেকে ১৫ শতাংশ ব্যক্তিরা পরোক্ষ ধূমপানের ফলে আক্রান্ত হন।

এছাড়াও বংশগত কারণ ও বায়ু দূষণ ফুসফুস ক্যান্সারের সম্ভাবনা আরো বাড়িয়ে তোলে। তবে প্রাকৃতিক কিছু উপাদানের মাধ্যমে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রোধ করা যায়। জেনে নিন সেসব উপাদান সম্পর্কে-

১. আদা
ফুসফুসকে পরিষ্কার করে আদা। এতে ক্যান্সারের আশঙ্কাও কমে যায়। আদার ওষুধি গুণ সম্পর্কে সবারই কম বেশি জানা আছে! এতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টি-ইফ্লেমেটরি উপাদানসমূহ। যা শারীরিক বিভিন্ন ব্যথা ও প্রদাহ দূর করতে পারে। ফুসফুসের সুরক্ষায় আদার স্যুপ, চা বা খাবারের সঙ্গে খেতে পারেন। আদা চায়ের সঙ্গে অবশ্যই লেবু ও মধু মেশাতে ভুলবেন না যেন!

২. হলুদ
শুধু হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতিতেই নয় বরং ফুসফুসকেও সুরক্ষিত রাখে হলুদ। শুধু মশলা হিসেবে নয় প্রাচীনকাল থেকেই হলুদ ব্যবহৃত হয় ওষুধ হিসেবেও। ভিটামিন ই বা সি’র তুলনায় পাঁচ থেকে আট গুণ বেশি কার্যকরী অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট রয়েছে এতে। যা শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। ফুসফুসের ক্যান্সার থেকেও রক্ষা করে হলুদ। এজন্য প্রতিদিনের খাবারে হলুদ রাখা বাধ্যতামূলক। সুফল পেতে হলুদের গুঁড়া দুধের সঙ্গে মিশিয়ে পান করুন। এছাড়াও গরম পানির সঙ্গে হলুদের গুঁড়া, আদা ও মধু মিশিয়েও পান করতে পারেন।

৩. দারুচিনি
অনেকেই মুখে সামান্য দারুচিনি রাখতে পছন্দ করেন। এর মিষ্টি গন্ধ সবাইকেই মোহিত করে। এই মশলাটিরও স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক। দারুচিনিতে রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদানসমূহ। যা ফুসফুসকে ক্যান্সারের থাবা থেকে বাঁচাবে। এমনকি যারা এরই মধ্যে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত তাদের জন্যও দারুচিনি প্রকৃত মহষৌধ হিসেবে বিবেচিত। সুফল পেতে প্রতিদিন দারুচিনির চা পান করুন পাশাপাশি খাবারেও ব্যবহার করুন।

৪. রসুন
এক রসুনের হাজারো উপকারিতা। কোলেস্টেরল ও ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে এর জুড়ি মেলা ভার। ঠিক তেমনি ক্যান্সারের কোষকে ধ্বংস করতে পারে রসুন। এতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা ফুসফুসের সুরক্ষায় কাজ করে। সুফল পেতে প্রতিদিন এক কোয়া কাঁচা রসুন চিবিয়ে খেতে পারেন। সেইসঙ্গে খাবারের সঙ্গে রসুন ব্যবহার করতে ভুলবেন না যেন!

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন