৫ দিনব্যাপী চলন নাটুয়ার চতুর্থ যাত্রা উৎসব

  


পিএনএস ডেস্ক: নাটোরের লালপুর উপজেলার ধুপইল শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে শুরু হয়েছে ৫ দিনব্যাপী চলন নাটুয়ার চতুর্থ যাত্রা উৎসব। আয়োজনের শুক্রবার রাতে প্রথম দিন মঞ্চস্থ হয় ধুপইলের নাট্য সংগঠন চলন নাটুয়ার পরিবেশনায় যাত্রাপালা 'মা মাটি মানুষ'। উৎসবের প্রথম দিন ভৈরব গঙ্গোপাধ্যায়ের বিখ্যাত যাত্রাপালাটি রাত সাড়ে ৮টায় শুরু হয়ে চলে গভীর রাত পর্যন্ত।

এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করে আবদুল মালেক, দুলাল চৌধুরী, মানিক, লালন, বজলু মোল্লা, শহিদুল, দুলাল, নজরুল, সুকুমার, রহিম, আলী আহমেদ, ইমামুল, বিফল, মিঠু, সাদেক, খোয়াজ, সামসুল আরও অনেকে। পালাটির নির্দেশনা দেন সুজিত ঠাকুর।

আয়োজকরা জানান, দয়ারামপুর ধুপইলের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সাধারণ মানুষদের নিয়ে অভিনয় অনুশীলন করে চলন নাটুয়া। আশপাশের নাট্যসংগঠনগুলোকে নিয়ে চলন নাটুয়া নাটক যাত্রাকে আন্দোলন হিসেবে গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি ফারুক হোসেন। বিভিন্ন সংগঠনকে উৎসাহিত করেন তিনি। সে জন্য প্রতিবছর ধীরাজ সুর নাট্যজন সম্মাননা দিয়ে থাকেন। এ ছাড়া এ বছর নাট্যজন সম্মাননা দেওয়া হয় নাটোরের নাট্যব্যক্তিত্ব সুবিধ কুমার মৈত্র এবং রাজশাহী কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক এম এ মালেক।

৫ দিনব্যাপী চলন নাটুয়ার চতুর্থ যাত্রা উৎসব উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন নাটোর ১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সাংসদ শহিদুল ইসলাম বকুল। তিনি বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে চলন নাটুয়ার যাত্রা আয়োজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। সাংসদ ধুপইলের নবনির্মিত মঞ্চের '৭১ মঞ্চ নামে' নামকরণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক নাট্যগবেষক কাজী সাইদ হোসেন দুলাল বলেন, হাজার বছরের প্রাচীন বিনোদন যাত্রাপালা হারিয়ে যেতে বসেছে। চলন নাটুয়া দুর্দিনে লড়াই সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি চলন নাটুয়ার আন্দোলনকে শ্রদ্ধা জানাই।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন এসপি আকরামুল হোসেন, বাগাতিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম গকুল, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের ইলামিত্র অঞ্চলের সমন্বয়কারী মশগুল হোসেন ইতিসহ আরো অনেকে। উৎসবের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করছেন নূরে আলম সিদ্দিকী।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন