সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করে নিজেই ফেঁসে যাচ্ছেন মিলা!

  

পিএনএস ডেস্ক : সাবেক স্বামীর নামে মামলা করেই নিজেই ফেঁসে যাচ্ছেন পপ গায়িকা। ২০১৭ সালে করা নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার চার্জ গঠন হয় ২০১৮ সালে। চার্জ গঠন হলেও গত দেড় বছর ধরে মিলা সাক্ষী দিতে না আসায় একাধিকবার সমন জারি করেন আদালত। তবুও আদালতে হাজির না হওয়ায় অবশেষে রোববার (২৩ জুন) মিলার নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-৯ ঢাকা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মিলার প্রাক্তন স্বামী পারভেজ সানজারি।

নিজের উপর দায়ের করা মামলা নিয়ে তিনি বলেন, মনগড়া ও মিথ্যা মামলা করে আমার পরিবার ও সম্মানহানি করেছেন। সাজানো মামলায় কোনো তথ্যপ্রমাণ সে দিতে পারেনি। এমনকি আমি নিয়মিত আদালতে হাজিরা দিলেও নিজের মামলার শুনানিতে সে নিজে কখনও উপস্থি হয়নি। বারবার ডেকে পাঠানোর পরও সে হাজির না হওয়ায় তার নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে।

তিনি আরো জানান, শুধু গ্রেফতারি পরোয়ানাই নয়, বিভিন্ন সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিলা একাধিকবার আদালত, মাননীয় বিচারক, বিজ্ঞ আইনজীবীদের নিয়ে কটূক্তি করায় কেন তার বিরুদ্ধে আদালত অববাননার অভিযোগ আনা হবে না তার আইনজীবীর কাছে তা জানতে চেয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল। সানজারির পক্ষের উকিল হিসেবে আছেন নাজিবুল্লাহ হিরো।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মারধার ও যৌতুকের অভিযোগ এনে বাদী হয়ে তার সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার পরই সানজারিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, বিয়ের পর পর্যায়ক্রমে কয়েকবার এ ধরনের মারধরের ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ তাকে ২০১৭ সালের ৩ অক্টোবর মারধর করা হয়।এর আগে তার স্বামী সানজারি পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক নিয়েছেন। এরপরও আরো ১০ লাখ টাকা দাবি করেন সানজারি। টাকা না পেয়ে তার স্বামী তাকে মারধর করেন।

উল্লেখ্য, ১০ বছর প্রেমের পর ২০১৭ সালের মে মাসে পাইলট পারভেজ সানজারিকে বিয়ে করেন মিলা। অথচ বিয়ের মাত্র ১৩ দিন পরেই তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। এরপর বিচ্ছেদ হয়ে যায় তাদের।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech