ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মশাল মিছিল

  

পিএনএস ডেস্ক : মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে ছাত্রলীগ নেতার মারধরের প্রতিবাদে মশাল মিছিল করেছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এ প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছে মঞ্চের নেতাকর্মীরা। মশাল মিছিল নিয়ে তারা মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে রাজু ভাস্কর্যে গিয়ে জড়ো হয়।

পরে সেখানে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. আল মামুনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, মঞ্চের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তূর্যসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, বিজয় একাত্তর হলে বাইসাইকেল রাখাকে কেন্দ্র করে গতকাল (১৩ মার্চ) দুপুরে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নাইমুল হাসানকে একই হলের ছাত্র সংসদ সদস্য ও ব্যবসায় অনুষদ শাখা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক শফিক ফকির মারধর করেছেন।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মঞ্চের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোঃ আল মামুন হামলাকারী কখনোই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী হতে পারে না মন্তব্য করে বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের সূতিকাগার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থী একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নাইমুল হাসানের উপর হামলাকারী কখনোই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী হতে পারে না। নাইমুলের বীর মুক্তিযোদ্ধা পিতা ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর আহবানে নিজের জীবন বাজি রেখে বাংলাদেশের লাল সবুজের পতাকা ছিনিয়ে এনেছিলো। স্বাধীনতার মাসে আজ সেই মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের উপর হামলা হলো যা অত্যন্ত দুঃখজনক।’

তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন আদর্শিক কর্মী কখনোই এরকম ঘৃণ্য কাজ করতে পারেন না। এটা দলের ভিতর অনুপ্রবেশকারীদের কাজ বলে আমরা মনে করি। একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নাইমুল হাসানের উপর হামলা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আঘাত করা হয়েছে বলে আমরা মনে করি। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। অবিলম্বে হামলাকারীর বিরুদ্ধে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে একাডেমিক ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় হামলাকারীর শাস্তির দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে অনশন শুরু করবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।’

প্রসঙ্গত, গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা ডাকসু কার্যালয়ে ভিপি নুরুল হক নুরের উপর হামলায় অংশ নিয়ে আলোচনায় এসেছিল। ন্যাক্কারজনক ওই হামলায় চালানোর দায়ে সংগঠনটির শীর্ষ নেতা আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তূর্যকে আটক করেছিল পুলিশ।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন