সাবেক উপাচার্যের দূর্নীতির অনুসন্ধানে বেরোবিতে দুদকের চিঠি

  

পিএনএস, বেরোবি প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) সাবেক উপাচার্য ড. একে এম নূর উন নবী’র অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ বিষয়ে সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বিভিন্ন রেকর্ডপত্র (কাগজ) পর্যালোচনার জন্য রেজিস্টার বরাবর চিঠি পাঠিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার রংপুর দুদকের সম্মিলিতি জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তলব করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার মুহাম্মদ ইব্রাহীম কবীর।

চিঠিতে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. একে এম নূর- উন-নবী’র অনিয়ম ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগের তদন্তের স্বার্থে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র আগামী ২০ মার্চ এর মধ্যে প্রেরণের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

তলবকৃত রেকর্ডপত্রের তালিকায় রয়েছে, আপ্যায়ন খাতের বিল ভাউচার, টিএ/ডিএ খাতের বরাদ্দ ও উত্তোলনের ভাউচার, ভ্রমণ সূচী, উপাচার্য পদের বাইরে দায়িত্বপালনকারী পদের বিবরণ, ৪৫ তম সিন্ডিকেট বৈঠকের রেজুলেশনের কপি, নির্বাহী প্রকৌশলী জনাব জাহাঙ্গীর আলম এর নিয়োগের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, তার সময়ে রেজিস্ট্রার পদে দায়িত্বপ্রাপ্তদের তালিকা, পরিবহণ জ্বালানী খাতের ব্যায়ের তালিকা, ২০১৩-২০১৭ পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষায় গ্রহিত টাকার পরিমাণসহ প্রয়োজনীয় দলিলাদী।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার মুহাম্মদ ইব্রাহীম কবীর বলেন, চিঠি আমার দপ্তরের এসেছে। আমি রংপুরের বাইরে আছি। গিয়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

গত বছরের ৫ মে উপাচার্য অধ্যাপক ড. একেএম নুর-উন-নবীর ৪ বছর মেয়াদ শেষ হয়। এর ২৫ দিনের মাথায় নতুন উপাচার্য হিসেবে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ দেওয়া অধ্যাপক ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ।

উল্লেখ্য, এর আগে কয়েকবার বিশ্ববিদ্যলয় মঞ্জুরী কমিশনের( ইউজিসি)চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান ও কমিশনের দায়িত্বে গঠিত কমিটি ড. নূর-নবীর অনিয়মের ব্যাপারে তদন্ত করতে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেছিলো।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech