বেরোবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

  

পিএনএস, বেরোবি প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে(বেরোবি)প্রভাতফেরি, শহীদ মিনারে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ, বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও অমর একুশের আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপিত হয়েছে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৮।

দিবসটির আলোচনায় ভাষার মর্যাদাকে সমুন্নত রাখতে বিশ্ববিদ্যালয়ে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছেন উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৮ উপলক্ষে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত পৃথক আলোচনা অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা দেন তিনি।

এ বছরই ভাষা ইনস্টিটিউট চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে বলেও জানান প্রফেসর কলিমউল্লাহ। দিবসটি উপলক্ষে বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত একুশের আলোচনায় তিনি আরো বলেন, বাংলা ভাষার মান বজায় রাখতে আমোদের সকলকে সচেতন থাকতে হবে। গণিত বিভাগের প্রফেসর ড. আর এম হাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একুশের আলোচনায় মুখ্য আলোচক ছিলেন নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের সাবেক উপাচার্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ শামসুল হক।

এছাড়াও মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শিক্ষকদের সংগঠন ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানেও প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে একই ঘোষণা দেন উপাচার্য ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। বেলা সাড়ে ১২টায় ইংরেজি গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত আয়োজিত সংগঠনের সদস্য-সচিব মোহাম্মদ রফিউল আজম খানের সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনায় প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংগঠনের যুগ্ম-আহবায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ গাজী মাজহারুল আনোয়ার।

জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা বিভাগের সহকারি পরিচালক ও ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আসিফ আল মতিন এর উপস্থাপনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আয়োজিত একুশের আলোচনায় মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের সাবেক উপাচার্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. শামসুল হক বাংলা ভাষার মর্যাদাকে অক্ষুণ্ন রাখতে শিক্ষকদের ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ভাষার যথেচ্ছ ব্যবহার আমাদের মাতৃভাষাকে হুমকির মুখে ফেলতে পারে। সুতরাং আমাদের সবার উচিৎ হবে যার যার জায়গা থেকে ভাষার মর্যাদা রক্ষা করা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগকে এ বিষয়ে বেশি উদ্যোগী হওয়ার আহবান জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক কমিটির সদস্য-সচিব এবং বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তাবিউর রহমান প্রধান। আলোচনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর তাজুল ইসলাম, বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন জনাব মোঃ ফেরদৌস রহমান এবং বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ গাজী মাজহারুল আনোয়ার।

এর আগে আজ সকাল সাড়ে ৭টায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন এবং কালো ব্যাজ ধারন এর মধ্যদিয়ে দিবসের মূল কর্মসূচি শুরু করা হয়। এরপর উপাচার্য এর নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগ, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিসহ(বেরোবিসাস) সকল সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন প্রভাতফেরিতে অংশ নেয়। প্রভাতফেরি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভবনের সম্মুখ থেকে যাত্রা শুরু করে মর্ডাণ মোড় প্রদক্ষিণ করে ফিরে আসে। এর পর শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ।

উল্লেখ্য, বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে ভাষা শহীদদের স্মরণে বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech