ধরিয়ে দিন

  

পিএনএস ডেস্ক: পল্টনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি সমর্থকদের সংঘর্ষের সময় ম্যাচ দিয়ে পুলিশের গাড়ি পুড়িয়ে দেয়া যুবকের স্পষ্ট চেহারা প্রকাশ করেছে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। জনসাধারণের কাছে যুবকটির নামসহ পরিচয় চেয়েছে তারা।

বুধবার রাতে নিজেদের ফেসবুক পেইজে এক পোস্টে তার সন্ধান চায় তারা। সন্ধানদাতাকে ০১৭১৩-৩৭৩১৪৭ নম্বরে ফোন দিয়ে জানানোর কথা বলা হয়েছে।

তবে ইতোমধ্যে এই ছবিটিকে ছাত্রদল এবং ছাত্রলীগের দুই নেতার নামজুড়ে দিয়ে ফেসবুকে নানা পোস্ট দিচ্ছেন। একপক্ষ লিখেছেন ছবিটি পল্টন থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শাহ্ জালাল খন্দকার এবং অপরপক্ষ লিখেছেন গুলশান থানা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান মিথুন। তবে কাউন্টার টেররিজমের একাধিক কর্মকর্তা জাগো নিউজকে জানিয়েছেন ছবিতে তাদের দুইজনের কেউই নেই।

এদিকে বুধবার বিকেলে অগ্নিসংযোগের কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, বিনা উসকানিতে ইস্যু তৈরি করার জন্য এটা করেছে ওরা। এ ঘটনায় মহানগর পুলিশের মতিঝিল জোনের এডিসিসহ ১৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

আহত পুলিশ সদস্যদের শারীরিক অবস্থা দেখতে কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, রাজারবাগে যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এ সময় তিনি বলেন, যারা পুলিশ সদস্যদের হত্যা করতে চেয়েছিল, পুলিশের দুইটি গাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে ও একটি এপিসি আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে, তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই মামলা করা হবে। ভিডিও ফুটেজ দেখে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহের মধ্যেই বুধবার ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যানসহ দুটি গাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া হয়। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নির্দিষ্ট দূরত্বে অবস্থান নিয়ে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পুলিশ।

অন্যদিকে, নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে বিক্ষিপ্ত মিছিল করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। জ্বালিয়ে দেয়া পুলিশের পিকআপ ভ্যানটির নম্বর ২৩১১। পুলিশের মতিঝিল জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) গাড়িটি ব্যবহার করতেন বলে জানা গেছে।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech