টাঙ্গাইলে ছাত্রীকে গণধর্ষণ, আটক-২

  

পিএনএস ডেস্ক : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে গতকাল রাত সাড়ে ৯ টার দিকে এক মাদ্রাসা ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। ধর্ষণের শিকার হওয়া ছাত্রী গোবিন্দাসী ইউনিয়নের জিগাতলা গ্রামের ফাজিল মাদ্রাসায় প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত ছিলেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উভয়ই পুলিশের কাছে ধর্ষণের কথা শিকার করেছে।

সূত্রের মাধ্যমে জানা যায়, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে ছাত্রীটি নিজ বাড়ি থেকে বাবা-মা’র সাথে অভিমান করে ভূঞাপুর বাসষ্ট্যান্ড থেকে এলেঙ্গা যাওয়ার উদ্দ্যেশে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় উঠতে গেলে দুই পরিবহন শ্রমিক হিটলার ও জাহিদ তার কাছে যায় এবং গন্তব্যের বিষয়টি জিজ্ঞাসা করে তাকে পৌঁছে দেবার আশ্বাস দেয়।

বিষয়টি ওই ছাত্রীর সন্দেহ হলে সে পায়ে হেঁটে শিয়ালকোলের দিকে রওনা দিলে জাহিদ ও হিটলার তার পিছু নেয়। মেয়েটি পুখুরিয়া শিয়ালকোল কবিরের ইট ভাটার কাছে পৌঁছালে হিটলার ও জাহিদ তার মুখ চেপে ধরে রাস্তার পাশে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়।

প্রথমে জাহিদ ও পরে হিটলার তাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। তখন মেয়েটির চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে হিটলারকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে এবং হিটলারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে হিটলারের দেয়া তথ্য মতে অপর ধর্ষক জাহিদকে নিজ এলাকা থেকে আটক করে।

এ ঘটনায় মেয়ের পিতা বাদী হয়ে হিটলার ও জাহিদকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুছ ছালাম মিয়া বলেন, ঘটনার পর পরই রাতে দুই ধর্ষককে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ধর্ষণের সত্যতা শিকার করেছে। মেয়েটির মেডিকেল পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রয়েছেন এবং দুই ধর্ষককে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech