পাইগাছায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

  

পিএনএস, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : খুলনার পাইকগাছায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করা হয়েছে। তবে চেয়ারম্যান বলছে তাকে হয়রানি মূলক আসামী করা হয়েছে। পুলিশ বিষয়টিকে রহস্যময় উল্লেখ করেছেন।

সূত্রমতে, উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের চককাওয়ালী গ্রামের শেখ আবু বক্কর সিদ্দিকীর মেয়ে তানজিলা খাতুন (৩০) কে পুনরায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ১৫ জুলাই তার প্রাক্তন স্বামী বিষ্ণপুর গ্রামের মোসাল উদ্দীন সরদারের ছেলে আলমগীর হোসেন সরদার (৩৫) ধর্ষণ করে এমন অভিযোগে তানজিলা খাতুন নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে আলমগীর হোসেন ও চাঁদখালী ইউপি চেয়ারম্যান জোয়াদুর রসুল বাবুকে আসামী করে মামলা করেন। এ দিকে ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানকে হয়রানি করতে আসামী করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেছেন। চেয়ারম্যান বাবু

বলেন, এখান থেকে কয়েক বছর আগে আমি থেকে আলমগীর ও তানজিলার মধ্যে বিয়ে দেই। বিয়ের পর তারা দু’জনই চাকুরী সূত্রে চট্টগ্রামে বসবাস শুরু করে। তানজিলা ওই খানেই আলমগীর নামে আরেক ছেলের সঙ্গে বিয়ে করে। এ নিয়ে আলমগীর ও তানজিলার মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে তানজিলা আলমগীরের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করে। যা তদন্তের দায়িত্ব আমার উপর অর্পন করা হয়। আমার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আলমগীর মামলা থেকে জামিন পায়। এ কারণে তানজিলা আমার উপর অখুশি হয়।

এ ছাড়াও জনপ্রতিনিধি হওয়ায় এলাকার একটি গ্রুপ আমার ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে তৎপর রয়েছে। এ সব ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবে আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হওয়া সত্বেও ৬৮ বছর বয়সে ধর্ষণ মামলায় আমাকে হয়রানী মূলক আসামী করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ওসি আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানান, ধর্ষণের ঘটনাটি রহস্যময়, এমনকি রহস্যের প্রমাণও রয়েছে। তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত বলা সম্ভব নয়।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech