বিদেশ থেকে ফিরেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে অনুষ্ঠানে কামরান

  



পিএনএস ডেস্ক: যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরে হোম কোয়ারেন্টাইনের সরকারি নির্দেশনা না মেনে ঘুরে বেড়াচেচ্ছন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র এবং বর্তমানে দলের কেন্দ্রীয় সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

মঙ্গলবার ঢাকায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণের সময় তিনি উপস্থিত ছিলেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বদর উদ্দিন আহমদ কামরান নিজের ফেইসবুকে এ-সংক্রান্ত ছবি প্রকাশ করলে বুধবার ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। এ অবস্থায় বুধবারও তিনি সিলেট আওয়ামী লীগ আয়েজিত মুজিববর্ষের আলোচনাসভায় অংশ নেন।

জানা যায়, বদর উদ্দিন আহমদ কামরান গত ফেব্রুয়ারি মাসে যুক্তরাজ্য ভ্রমণে যান। গত ১৫ মার্চ তিনি দেশে ফেরেন। করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষিতে বিদেশফেরতদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার বাধ্যবাধকতা ঘোষণা করেছে সরকার। কিন্তু এ বিধি না মেনে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগদান করেছেন।


সিলেটের অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমি বিদেশে থাকলেও সিলেটের আয়োজনের ব্যাপারে খোঁজ-খবর রেখেছি। সিলেটে মুজিববর্ষের সফল অনুষ্ঠান হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত।’

এ ব্যাপারে বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের বক্তব্য জানতে যোগযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি ইনশাল্লাহ শতভাগ নিশ্চিত যে এ ধরনের রোগে আক্রান্ত না। কারণ তারা (স্বাস্থ্য বিভাগ) যে ফরম দিয়েছেন তা ফিলআপ করে দিয়েছি, আর সিলেট এয়ারপোর্টে নামার পর তারা আমাকে চেকআপ করে দেখেছে। আর ওই ধরনের রোগের উপসর্গ যেটা, এগুলো কিছুই আমার মধ্যে নেই।’

কোয়ারেন্টাইনে থাকা বিষয়ে সরকারি নির্দেশনায় বলেন, ‘আমি তো একদম আনকনশাস মানুষ না, আমি অনেকটা সচেতন। আমি যদি বিন্দুমাত্র এটা টের পেতাম লন্ডন থাকা অবস্থায়, তাহলে হয় আমি দেশে আসতাম না, আর দেশে আসলেও অন্য কোথাও মিশতাম না। আমি ইনশাল্লাহ আশাবাদী, আমার শরীরের যে অবস্থা, তাতে আমি পুরোপুরি সুস্থ বলতে পারি। যে কারণে বিষয়টাকে আমি এভাবেই দেখছি।’


প্রসঙ্গত, ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে যুক্তরাজ্য যান কামরান। ১৫ মার্চ দেশে ফিরলে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দলীয় অনুসারীরা তাকে সংবর্ধনা প্রদান করেন। সংবর্ধনার কিছু ছবি ফেসবুকেও শেয়ার করেন কামরান অনুসারীরা।

সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশ সফর করা যে কাউকেই স্বেচ্ছায় কিছুদিন হোম কোয়ারেন্টাইন থাকা প্রয়োজন। সকলের স্বার্থেই বিদেশফেরতদের এটি মেনে চলতে হবে।

পিএনএস/হাফিজ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন