মহাদেবপুরে তিল চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা

  

পিএনএস, নওগাঁ প্রতিনিধি : অল্প খরচে অধিক লাভ হওয়ায় নওগাঁর মহাদেবপুরে তিল চাষে ঝুঁকছেন কৃষকরা। প্রতিবছর এ উপজেলায় তিল চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত বছরের তুলনায় চলতি মৌসুমে দ্বিগুণ জমিতে তিল চাষ হয়েছে। বড় কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে বাম্পার ফলনের আশা করছেন এলাকার তিল চাষীরা।

আমন ধান কাটার পর জমি যখন খালি থাকে তখন তিল চাষ করা হয়। আর তিল চাষে সার ও কীটনাশক লাগেনা বললেই চলে। গরু-ছাগল তিল গাছ খায়না তাই রক্ষণাবেক্ষনে কোন খরচ হয়না। এক বিঘা জমিতে তিল চাষে খরচ হয় প্রায় ৪ হাজার টাকা। প্রতি বিঘা জমিতে ৬-৮ মণ তিল পাওয়া যায় । বর্তমানে স্থানীয় বাজারে প্রতিমণ তিলের দাম ২ হাজার টাকা। এতে এক বিঘা জমিতে কৃষকের লাভ হয় প্রায় ৮-১২ হাজার টাকা।

রোদইল গ্রামের কৃষক আলিম উদ্দীন, পরিতোশ, চকহরিবল্লভ গ্রামের লুৎফর রহমান ও সাদেকুল ইসলাম জানান, অতিরিক্ত বৃষ্টি তিলের জন্য ক্ষতিকর। তবে মাঝে মাঝে বৃষ্টি হলে ভাল হয়। এবার তিল চাষ শুরুর পর চৈত্র-বৈশাখ মাসে মাঝে মধ্যে বৃষ্টি হয়েছে, যার ফলে এবার তিলের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষকরা আশা করছেন তিল উঠা পর্যন্ত বড় কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে তিলের ভাল ফলন পাওয়া যাবে। তিল দিয়ে তেলসহ বিভিন্ন মুখরোচক খাবার তৈরি করা হয়। এ উপজেলাসহ উত্তরাঞ্চলের প্রায় প্রতিটি হাট-বাজারে তিলের খাজা, তিলের নাড়–, তিলের জিলাপি প্রভৃতি খাবারের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এছাড়াও তিলের ভর্তা, ঘাটিসহ বিভিন্ন রান্নায় তিল ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ একেএম মফিদুল ইসলাম জানান, তিল চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। প্রতি বছরই তিল চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত বছর মহাদেবপুর উপজেলায় ৫ দশমিক ৮ হেক্টর জমিতে তিল চাষ হয়েছিল। চলতি মৌসুমে বৃদ্ধি পেয়ে ১০ দশমিক ২ হেক্টর জমিতে তিল চাষ হয়েছে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech