পাঠকের চিঠি

টেলিভিশন মালিকেরা স্বাধীনভাবে সরকারকে খুশি রাখেন

  

পিএনএস :টেলিভিশনের স্বাধীনতা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শতকরা একশ ভাগ ঠিক কথা বলেছেন। সত্যিই টেলিভিশনগুলোর মালিকদের পুরোপুরি স্বাধীনতা রয়েছে৷ স্বাধীনভাবেই তারা জানার উপায় খুঁজে বার করেন, কীসে সরকার খুশি হবে আর কীসে বেজার।কারণ বিষয়টি আদর্শলিপির মতো সরল, সরকার খুশি থাকলে মালিকদের ভালো, সরকার বেজার হলে মালিকদের জীবনে নেমে আসতে পারে অন্ধকার৷ মালিকদের স্বাধীনতা মানে যে সাংবাদিকদের স্বাধীনতা নয়, তাও দিনের আলোর মতোই স্পষ্ট।দেশের টেলিভিশন চ্যানেলের মালিকেরা বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ

ডেঙ্গু নিয়ে যা কেউ বলেনি

  

পিএনএস(মুজতাবা তামীম আল মাহদী) : ডেঙ্গু নিয়ে খুব আতঙ্কের মধ্যে দিনকাল কাটছে। এর মধ্যেই কিছু অদ্ভুত চিন্তা আর প্রশ্ন জেঁকে বসলো মাথায়। নিজে নিজে খুঁজে বের করলাম উত্তরও। আপনিও জেনে দেখুন। অবাক না হয়ে পারবেন না।ছোটবেলায় পড়েছিলাম অনেক ধরনের মশার কথা। এনোফিলিস, কিউলেক্স আর এডিস মশা। প্রত্যেকটা ভিন্ন ভিন্ন রোগ সৃষ্টি করে। এই ভিন্নতার কারণ কি? যেহেতু এখন ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বেশি, তাই আমার জানতে ইচ্ছা হলো-ডেঙ্গু ভাইরাস কেন এডিস মশাই বহন করে?উত্তর পেলাম, মানুষের জন্য ক্ষতিকর কোনো জীবাণু বহন

এখনকার দিনে মানুষ মানুষকে পেটায় সাপের মতো!

  

পিএনএস ডেস্ক: সাপ পেটানো দেখেছেন? ছোট সময় দু-একবার হয়তো নির্মম এই হত্যায় শামিলও হয়েছেন কেউ কেউ। গ্রামে এটি খুব পরিচিত দৃশ্য। সাপ মারা শেষে লাঠির মাথায় নিয়ে ছেলেপুলে এ-পাড়া থেকে ছুটে যেত ও-পাড়ায়। দেখানোর জন্য, কী গৌরবের কাজ করেছে তারা! সাপ পিটিয়ে মেরেছে! সহজ কথা নয়।এখনকার দিনে মানুষ মারা হচ্ছে সাপের মতো। রীতিমতো খেলা শুরু হয়েছে মানুষের জীবন নিয়ে। পশুপাখির চেয়েও মূল্যহীন মানুষের জীবন! কিছু নয়, কেবল সন্দেহ! সন্দেহের বশে পিটিয়ে মারা হচ্ছে মানুষ। এসব আবার ভিডিও করে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে সামাজিক

‘সরল বিশ্বাস’ নিয়ে আমি দুদক প্রধানের অসহায়ত্ব দেখছি

  

পিএনএস : দুদক চেয়ারম্যানের বলা ‘সরল বিশ্বাস’ এবং পেনাল কোড নিয়ে কাল সারাদিন আলোচনা হয়েছে৷ সামাজিক মাধ্যমের পেন্ডুলাম নীতি অনুসারে যথারীতি প্রথমে জনাব মাহমুদের বিরুদ্ধে অভিযোগের ঢেউ বয়ে চলে, আর এর পর আসে ‘সাংবাদিক বুঝে না' বাতাস৷পেনাল কোডে থাকা সরল বিশ্বাসে করা কাজ আর তার জন্য দায়মুক্তি ২০০ বছর ধরে সরকারি কর্মচারীদের রক্ষাকবচ৷ তবে এটি আজকের যুগে মূল্যহীন আর পরিত্যক্ত৷ খোদ ইংল্যান্ডেই এটি তুলে দেওয়া হয়েছে মোটামুটি৷ ডিসি সম্মেলন থেকে বেরিয়ে দুদক চেয়ারম্যানের এ প্রসঙ্গের উল্লেখ অবশ্যই বিশেষ

এরশাদকে যেমন দেখেছি

  

পিএনএস ডেস্ক: ২০০১ সালের সংসদ নির্বাচনের তখন আর মাত্র ১৬ দিন বাকি। একটি জাতীয় দৈনিকে সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে নিয়োজিত থাকাকালে নির্বাচন কমিশন কভার করার দায়িত্ব পালন করছি। আমার নিজের বিশেষায়িত প্রতিরক্ষা বিট তো আছেই। সংসদ নির্বাচনের সময় নির্বাচন কমিশন সংক্রান্ত রিপোর্ট করা যে কী ঝক্কি-ঝামেলার ব্যাপার, তা ভুক্তভোগী ছাড়া অনুধাবন করা সম্ভব নয়। ওই নির্বাচনে আবার সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিয়ে মোতায়েন করায় প্রতিরক্ষা বিষয়েও তীক্ষ নজর রাখতে হতো। সকালে বের হয়ে চলে আসতাম নির্বাচন কমিশনে। এই

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বালিশ কেনে ছাত্রদল কর্মী, আপনি কি এই তথ্য বালিশকাহিনির পরে জানলেন?

  

পিএনএস ডেস্ক : মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি বলেছেন, বালিশ কেনার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা ছাত্রদল করতেন৷ আমাদের প্রশ্ন, আপনি কি এই তথ্য বালিশকাহিনির পরে জানলেন? নাকি আগে থেকেই আপনার কাছে তথ্য ছিল?একজন অভিযুক্ত আগে কোন দল বা সংগঠন করতো, কোন রাজনীতিতে বিশ্বাসী ছিল– এটা বলে আপনি কী প্রমাণ করতে চাইলেন?সাড়ে দশ বছর ধরে আপনি ও আপনার দল ক্ষমতায়৷ এখনো ছাত্রদলের লোকেরা বালিশ কিনতে পারছে, আর কী কী কিনছে তা তো এখনো আমরা জানি না৷ ধরা না খেলে তো আমাদের পক্ষে জানা সম্ভব না যে, প্রশাসনে বা সরকারের

মুহিতের দেখানো পথেই হাঁটছেন কামাল

  

পিএনএস ডেস্ক: অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল গত বৃহস্পতিবার যে বাজেটটি উপস্থাপন করেছেন, সেটি বলতে গেলে সদ্য সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বাজেটেরই ধারাবাহিকতা, কিন্তু এবারের বাজেট বক্তৃতাটি বেশি সংক্ষিপ্ত ও প্রযুক্তিনির্ভর করতে গিয়ে মুস্তফা কামাল ও তাঁর মন্ত্রণালয়ের টিম খুব মুনশিয়ানার পরিচয় দিতে পারেনি। আমরা যারা বাজেট বক্তৃতা থেকে আগামী অর্থবছরের অর্থনীতির সম্ভাব্য গতি–প্রকৃতি সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করতে অভ্যস্ত, তঁাদেরও বেশ অতৃপ্ত থাকতে হয়েছে বাজেট বক্তৃতার দুর্বল

নুরের মার খাওয়া, অজ্ঞান হওয়া সবই নাটক?

  

পিএনএস ডেস্ক : ডাকসু ভিপি নুরকে মারছে ছাত্রলীগ, যেখানে পাওয়া যাচ্ছে বা মারতে ইচ্ছে করছে, সেখানেই মারছে।আমার ধারণা, তাঁকে মারা হচ্ছে সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনেই। কারণ তাঁকে মার দেওয়ার প্যাটার্নটা মোটামুটি একরকম। প্রথমে পুলিশ অনুমতি দেবে না, তা ইফতার হোক, সংবাদ সম্মেলন বা যে-কোনো জমায়েত। তারপর ছাত্রলীগের কর্মী-নেতারা এসে তাঁকে মেরে-ধরে উঠিয়ে দেবে বা শুইয়ে দেবে। পরে বলবে, হালকা ধাক্কাধাক্কি বা সাজানো নাটক। নুরের মার খাওয়া, অজ্ঞান হওয়া সবই নাটক!মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমার খুব জানতে ইচ্ছে

গরীব’ বলে দীর্ঘ যাত্রায় ঠাই মিললো মেঝেতেই!

  

পিএনএস ডেস্ক: কর্মস্থল ৬৫ কিলোমিটার দূরে হওয়ায় প্রতিদিন আমাকে দূরপাল্লার বাসে যাতায়াত করতে হয়। আজ সকালে যখন বাসে উঠেছি তখন ভালো কোন সিট না পেয়ে ড্রাইভারের পাশের সিটে সংকুচিত হয়ে বসেছিলাম।কিছুক্ষন পর খেয়াল করলাম, বাসের সামনের সিটে দু জন মহিলা বসা, একজন মাঝ বয়সী আরেক জন উনার মা হবে সম্ভবত। মাঝ বয়সী মহিলাটির চুলে কৃত্তিম লালচে রং করা হয়েছে। জামা পড়েছে কমলা রঙ্গের এবং কি পায়ের নখের কালার ও করেছে জামার সাথে ম্যাচ করে কমলা রঙ্গের ই।মহিলা দু জনের পোষাকে মনে হলো বেশ বিত্তশালী। পায়ের কাছে

‘ক্ষমতার রাজনীতি নয় জনগণের ভালবাসা অর্জনই সর্বোত্তম রাজনীতি’

  

পিএনএস (আক্তারুজ্জামান বাচ্চু) : আমাদের দেশটি আয়তনে ছোট হলেও এদেশের মানুষকে ছোট করে দেখার কোনও সুযোগ নেই। এদেশের মানুষ স্বাধীনতার জন্য, ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে ; তবুও মাথা নত করেনি ।স্বাধীনতার ৪৮ বছর হয়েছে । ইতিমধ্যে পৃথিবীতে অনেক প্রযুক্তিগত উন্নতি, আর্থ সামাজিক ও রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হলেও স্বাধীন দেশটিতে একনায়কতান্ত্রিক রাজনীতি ও দূর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্রযন্ত্রের কারণে আমরা ক্রমান্বয়েই পিছিয়ে পড়ছি । রাষ্ট্র আজ ভয়াবহভাবে একনায়কবাদী, বাক স্বাধীনতা হরণকারী ও সত্যকে নিষ্ঠুরভাবে দমনকারীর ভূমিকায়

Developed by Diligent InfoTech