ইসলাম

যেভাবে অযোগ্য ব্যক্তিকে ভোট দেয়া কবিরা গুনাহের সামিল!

  

পিএনএস ডেস্ক :প্রতিটি মানুষ মহান আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে কোনো না কোনো বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত। প্রত্যেকেরই একে অপরের প্রতি কিছু দায়িত্ব-কর্তব্য ও দায়বদ্ধতা রয়েছে। এ দায়বদ্ধতার বিষয়ে কিয়ামতের দিন প্রত্যেককেই জবাবদিহিতার সম্মুখীন হতে হবে। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় ভোট একটি আমানত। আমানতের খেয়ানত করা বা ভঙ্গ করা কবিরা গুনাহ।রাসুলে কারিম (সা.) ইরশাদ করেছেন, মুনাফিকের লক্ষণ তিনটি— যখন কথা বলে মিথ্যা বলে, যখন ওয়াদা করে তখন তা ভঙ্গ করে আর যখন তার কাছে আমানত রাখা হয় তখন সে তার খেয়ানত করে। (বুখারি,

জেনে নিন আয়াতুল কুরসির ফজিলত

  

পিএনএস ডেস্ক : আয়াতুল কুরসী পবিত্র কোরআন শরীফের দ্বিতীয় সুরা আল বাকারার ২৫৫তম আয়াত। এতে সমগ্র মহাবিশ্বের উপর আল্লাহর জোরালো ক্ষমতা ঘোষণা করা হয়েছে। এটি পাঠ করলে অসংখ্য পূণ্য লাভ হয়।আয়াতুল কুরসির ফজিলত সম্পর্কে হাদিসে অনেক বর্ণনা রয়েছে। ইমাম আহমদ (রহ.) বর্ণনা করেন, একদিন উবাই ইবনে কাবকে নবী করিম (সা.) জিজ্ঞেস করেন, কোরআনের মধ্যে কোন আয়াতটি সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ?তিনি বলেন, আল্লাহ ও তার রাসূলই তা বেশি জানেন। নবী করিম (সা.) আবার জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, আয়াতুল কুরসি। অতঃপর রাসূলুল্লাহ

হবিগঞ্জে ঈদে মিলাদুন্নবীর শোভাযাত্রায় মুসল্লিদের ঢল

  

পিএনএস ডেস্ক : পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উপলক্ষে হবিগঞ্জে বিশাল শোভাযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে জেলার প্রায় ৫ হাজারের অধিক ধর্মপ্রাণ মুসল্লি যোগ দেন।বুধবার বেলা ১২টায় হবিগঞ্জ মসজিদ সমন্বয় সুন্নী সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে চৌধুরী বাজার পয়েন্ট থেকে এক বিশাল শোভাযাত্রা বের হয়ে সারা শহর প্রদক্ষিণ করে। এর আগে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল সহকারে পয়েন্টে এসে জড়ো হন মুসল্লিরা। পরে জেলা প্রশাসনের কার্যালয় প্রাঙ্গণে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।সমাবেশে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতা করেন

আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)

  

পিএনএস ডেস্ক : আজ বুধবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। হিজরি সনের ১২ রবিউল আউয়াল ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) পালন করা হয়। ১০ নভেম্বর শনিবার থেকে পবিত্র রবিউল আউয়াল মাস গণনা শুরু হয়। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর জন্ম ও ওফাত দিবস হিসেবে সারাদেশে যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যদা ও ভাবগাম্ভির্যের মধ্যদিয়ে দিবসটি পালিত হবে। পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন নানা অনুষ্ঠানের আয়োজান করেছে।প্রতি বছরের মতো আনজুমানে রহমানিয়ার মইনীয়া মাইজভান্ডারীয়ার উদ্যোগে রাজধানীতে জসনে

বিশ্বের প্রত্যেক মানুষের কাছে ঈদে মিলাদুন্নবীর তাৎপর্য

  

পিএনএস ডেস্ক : পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী ১২ রবিউল আউয়াল- বুধবার। মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর জন্ম ও মৃত্যু দিবস। ৫৭০ খৃস্টাব্দের এ দিনে মক্কায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি আর ৬৩২ খৃস্টাব্দে একই দিনে ইহলোক ত্যাগ করেন। আইয়ামে জাহেলিয়াতের অন্ধকার দূর করতে এই দিনে তৌহিদের মহান বাণী নিয়ে এসেছিলেন এ মহামানব। বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায়সহ শান্তিকামী প্রত্যেক মানুষের কাছে দিনটি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। চৌদ্দশ বছর আগে বারোই রবিউল আউয়াল আরবের মরু প্রান্তরে মক্কায় কুরাইশ বংশে মা আমিনার কোল আলোকিত করে জন্ম নিয়েছিলেন

বুধবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)

  

পিএনএস ডেস্ক : আগামীকাল বুধবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। নবী দিবস। এটি মানবজাতির শিরোমণি। মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর জন্ম ও ওফাত দিন।৫৭০ খ্রিস্টাব্দের ১২ রবিউল আউয়াল মহানবী ইসলামের শেষ নবী হিসেবে আরবের মরু প্রান্তরে মা আমিনার কোল আলো করে জন্মগ্রহণ করেন এবং একই তারিখে তিনি ইন্তেকাল করেন।একটা সময় গোটা আরব জাহান তমসার অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল। মানুষ হয়ে পড়েছিল বেদ্বীন। তারা আল্লাহকে ভুলে গিয়ে নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়ে পড়েছিল। সর্বত্র দেখা দিয়েছিল অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা। এ যুগকে বলা হতো

নবী-রাসুলদের কার কোন পেশা ছিল

  

পিএনএস ডেস্ক : আল্লাহ তাআলা সর্বযুগে সব জাতির কাছে নবী-রাসুল প্রেরণ করেছেন। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন, ‘প্রতিটি জাতির জন্য পথ-প্রদর্শনকারী রয়েছে।’ (সুরা : আর রাদ, আয়াত : ১৩) অন্যত্র ইরশাদ করেছেন, ‘আমি রাসুল প্রেরণ না করে কাউকে শাস্তি দিই না।’ (সুরা : বনি ইসরাইল, আয়াত : ১৬৫)সব নবী-রাসুলের কোনো না কোনো পেশা ছিল, তাঁরা অন্যের ওপর নির্ভরশীল হতেন না। বরং স্বীয় হস্তে অর্জিত জিনিস ভক্ষণ করাকে পছন্দ করতেন। মহানবী (সা.)-কে প্রশ্ন করা হয়েছিল, কোন ধরনের উপার্জন উত্তম ও শ্রেষ্ঠ? তিনি প্রত্যুত্তরে বলেন,

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী ২১ নভেম্বর

  

পিএনএস ডেস্ক : বাংলাদেশের আকাশে শুক্রবার ১৪৪০ হিজরি বর্ষের পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। এ জন্য ১০ নভেম্বর শনিবার থেকে রবিউল আউয়াল মাস গণনা শুরু হবে।সে হিসেবে আগামী ২১ নভেম্বর (বুধবার) পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) পালন করা হবে।শুক্রবার জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।শুক্রবার সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররমের সভাকক্ষে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় ১৪৪০ হিজরি বর্ষের রবিউল

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সময় সীমা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ হাদিস

  

পিএনএস (মোহাম্মদ সোলাইমান) : হযরত আবদুল্লাহ বিন আমর (রা) হতে বর্নিত তিনি বলেন, রাসূল (স) বলেছেন, যোহরের নামাযের সময় সূর্য ঢলে পড়ার পর শুরু হয়। মানুষের ছায়া তার দৈর্ঘ্যরে সমান যখন হয়, যে পর্যন্ত আসরের নামাযের সময় উপস্থিত না হয়। আসরের নামাযের সময় জুহরের নামাযের পর থেকে যে পর্যন্ত সূর্য হলুদ রং ধারণ না করে। আর মাগরিবের নামাযের সময় হলো সূর্যাস্তের পর থেকে পশ্চিমাকাশের লালিমার পর কালো ছায়া মিশে যাবার আগ পর্যন্ত। আর ইশার নামাযের সময় মাগরিবের নামাযের পর থেকে শুরু করে মধ্যরাত পর্যন্ত। ফজরের

জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা শুক্রবার

  

পিএনএস ডেস্ক : জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল শুক্রবার। সভায় ১৪৪০ হিজরি সনের পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর তারিখ নির্ধারণ ও চাঁদ দেখার সংবাদ পর্যালোচনা বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।বৃহস্পতিবার ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে গণমাধ্যমকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।এদিন সন্ধ্যা ৫.৪৫টায় (বাদ মাগরিব) ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মুকাররম সভাকক্ষে এই সভার আয়োজন করা হয়েছে।বিজ্ঞপ্তিতে আরো উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশের আকাশে কোথাও পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে তা

Developed by Diligent InfoTech