স্বাস্থ্যকথা

যাদের শরীরের ‘টি-সেল’ আছে কখনও করোনা হবে না

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) আক্রান্ত না হওয়া অনেকের শরীরে এমন ‘টি-সেল’ রয়েছে, যেটি এই ভাইরাসকে প্রতিহত করতে সক্ষম। কারণ হিসেবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, সম্ভবত এসব ব্যক্তি অন্য কোনো করোনাভাইরাস দ্বারা এর আগে সংক্রমিত হয়েছিল। বিজ্ঞানীরা আরেকটি আশার কথাও শুনিয়েছেন। সেটি হলো, মৃদু উপসর্গ থাকা ব্যক্তির শরীরেও এমন ‘টি-সেল’ এবং ‘অ্যান্টিবডি’ তৈরি হতে পারে, যেটি তাকে ভবিষ্যৎ সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে সক্ষম।গবেষণায় মোট ৪০ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে ২০ জন করোনায় আক্রান্ত

আবারো হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ট্রায়ালের অনুমতি দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

  

পিএনএস ডেস্ক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচ) বুধবার এক ঘোষণায় জানায় যে, ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন করোনা চিকিত্সাএর ট্রায়ালে ব্যবহার করা যাবে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিত্সাযর জন্য এই ওষুধটির উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল আবারো শুরু হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। ২৫ মে এক ঘোষণায় করোনা রোগীদের চিকিত্‍‌সায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ট্রায়াল সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য

ব্লিচিং পাউডারের সঙ্গে ডেটল বা স্যাভলন মেশালে যে মারাত্মক ক্ষতি হবে!

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সব কিছু জীবাণুমুক্ত রাখা খুব জরুরি। তাইতো সবাই কম বেশি জীবাণুনাশক ডেটল, স্যাভলন, ব্লিচিং পাউডার ইত্যাদি ব্যবহার করে থাকেন। তবে ব্লিচিং পাউডার (ক্যালসিয়াম ক্লোরো হাইপোক্লোরাইট) সবচেয়ে পরিচিত এবং সহজলভ্য জীবানুনাশক। যা বেশিরভাগ মানুষই ব্যবহার করে থাকেন।অনেকেই মনে করেন ব্লিচিং পাউডারের সঙ্গে অন্য যে কোনো পরিষ্কারক (ডেটল,স্যাভলন) কিংবা জীবানুনাশক (স্যানিটাইজার) মিশিয়ে নিলে এর শক্তি বাড়বে। এতে হয়তো আরো বেশি জীবানু ধ্বংস হবে। এই মহামারিতে এই চিন্তা করাটা

করোনামুক্তদের অপারেশনের প্রয়োজন হলে মৃত্যুর ঝুঁকি অনেক বেশি : গবেষণা

  

পিএনএস ডেস্ক: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে গোটা বিশ্ব। এই ভাইরাসের বিষাক্ত ছোবলে দিশেহারা হয়ে পড়েছে বিশ্বের আধুনিক চিকিৎসাবিজ্ঞান।এখন পর্যন্ত (রবিবার সকাল সোয়া ৯টা পর্যন্ত) বিশ্বব্যাপী আক্রান্ত হয়েছে ৬১ লাখ ৫৬ হাজার ৯১৪ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৯০ হাজার ৯১৮ জনের।এদিকে, এই ভাইরাসের থাবা থেকে সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ২৭ লাখ ৩৭ হাজার ৩৯ জন।কিন্তু এত সংখ্যক মানুষ প্রাণঘাতী এই ভাইরাস থেকে সুস্থ হলেও তাদের নিয়ে আশঙ্কা রয়েই যাচ্ছে। কেননা, একবার করোনায় আক্রান্ত হলে

আতঙ্কের নামই করোনা!

  

পিএনএস ডেস্ক: লকডাউনের জেরে দেশে দেশে অর্থনৈতিক কার্যকলাপ প্রায় স্তব্ধ। ব্যবসা বাণিজ্য নেই, উৎপাদন ক্ষেত্র ধুঁকছে, সব মিলিয়ে পরিস্থিতি ভয়াবহ। এখনো আবিষ্কার হয়নি এই মহামারীর কোনও প্রতিষেধক। এই অবস্থায় মানুষের মনে করোনা নয়, আতঙ্কই এখন বড় ভাইরাস হিসেবে ধরা দিয়েছে। করোনাভাইরাস যতটা না বিপদজনক তার চেয়েও বেশি ভয়াল রূপ ধারণ করেছে এই মহামারী নিয়ে ছড়িয়ে পড়া আতঙ্ক।অথচ প্রতিনিয়তই করোনায় মৃত্যুর চেয়েও কয়েক গুণ বেশি মৃত্যু হচ্ছে অন্যান্য রোগ ও দুর্ঘটনায়। বিশ্বব্যাপী করোনার বাইরে মানুষের মৃত্যুর

অতিরিক্ত হেঁচকি যেসব আগাম রোগের লক্ষণ!

  

পিএনএস ডেস্ক: অনেক সময় আমদের হঠাৎ করেই হেঁচকি উঠতে শুরু করে। বিররক্তিকর এই হেঁচকি সহজেই চলে যায় তা কিন্তু নয়। ছোট-বড় সবাইকেই এই সমস্যা পোহাতে হয়। মূলত দ্রুত খেতে চেষ্টা করলে, অনেক গরম ও মসলাদার খাবার খেলে, গরম খাবারের সঙ্গে খুব ঠাণ্ডা পানি বা পানীয় পান করতে শুরু করলে, অনেকক্ষণ ধরে হাসলে বা কাঁদলে হেঁচকি উঠতে পারে।যদিও বিজ্ঞানীদের কাছে হেঁচকি কেন হয় তা এখনো খুব স্পষ্ট নয়। তবে ধারণা করা হয়, আমাদের বুক আর পেটের মাঝখানে মাংসপেশি দিয়ে তৈরি একটি পার্টিশন আছে যা একটি নির্দিষ্ট ছন্দে সংকোচিত ও

যেসব ভুলে নষ্ট হচ্ছে আপনার চোখ!

  

পিএনএস ডেস্ক :চোখ আমাদের দেহের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। যা প্রতিটি মানুষের জন্যই খুব মূল্যবান। চোখ না থাকলে আমরা দুনিয়ার সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারতাম না। আর না পারতাম নিজেকে সমাজের উচ্চতর স্থানে নিয়ে যেতে। চোখ ছাড়া আমরা কোনো কাজই করতে সক্ষম থাকতাম না।তবে জানেন কি, আমরা সব থেকে বেশি অবহেলা করি আমাদের চোখকে। নিজেদের অজান্তেই আমরা এমন কিছু ভুল করি যা চোখের নানা ক্ষতির জন্য দায়ী। চলুন জেনে নেয়া যাক নিত্যদিনের যেসব ভুলে আমাদের মূল্যবান চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে-> চলন্ত ট্রেন, বাস বা দূরন্ত

করোনা শনাক্ত হবে মাত্র কয়েক সেকেন্ডে?

  

পিএনএস ডেস্ক: সারা বিশ্ব জুড়ে চলছে করোনার প্রকোপ। এরই মধ্যে করোনার টেস্ট নিয়ে বিশ্বজুড়ে চলছে তোড়জোড় প্রচেষ্টা। এবার লেজার সিস্টেমের মাধ্যমে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে নিখুঁতভাবে করোনার টেস্ট করার পদ্ধতি নিয়ে এসেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।কোয়ান্টাম পদার্থবিদের একটি দল দাবি করছে, এই টেস্টের মাধ্যমে ৮৫ থেকে ৯০ ভাগ সঠিক ফলাফল পাওয়া সম্ভব হবে। দুবাইয়ের কোয়ান্টলেস ইমেজিং ল্যাব বলছে ভ্যাকসিন যতদিন বাজারে না আসছে ততদিন এই প্রযুক্তি ভাইরাস শনাক্ত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে।পরীক্ষার পদ্ধতিটি

ভ্যাকসিন তৈরিতে ব্যর্থ অক্সফোর্ড

  

পিএনএস ডেস্ক: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বিশ্ববাসী। এরই মধ্যে এই ভাইরাস প্রতিরোধে দিনরাত কাজ করে চলেছেন বিজ্ঞানী ও গবেষকরা। বিজ্ঞানী ও গবেষকদের প্রয়াসে একের পর এক ভ্যাকসিন নিয়ে স্বপ্ন দেখা শুরু করেছেন বিশ্ববাসী। তার মধ্যে সবার চোখ ছিল অক্সফোর্ডের দিকে। কিন্তু করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটি নিয়ে হতাশার খবর জানিয়েছেন সেখানকার গবেষকেরা।কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত বানরের ওপর পরীক্ষায় অকার্যকর হয়েছে তাদের তৈরি ভ্যাকসিনের ট্রায়াল। এ ট্রায়ালের পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,

করোনাকালীন যা খাবেন, যা খাবেন না!

  

পিএনএস ডেস্ক: গোটা বিশ্ব কাঁপছে করোনা জ্বরে। বাংলাদেশেও আক্রান্ত হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ। আক্রান্ত আর মৃত্যুর মিছিল প্রতিদিনই বাড়ছে। আতঙ্ক আর উদ্বেগে দিন কাটছে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের। বাংলাদেশে করোনার বিস্তার রোধে সরকারি-বেসরকারি, ব্যক্তিগত ও দলীয় পর্যায়ে নেয়া হচ্ছে না উদ্যোগ। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শুরু থেকে খাবারদাবারের ওপর নানা বিধিনিষেধের কথা বলা হচ্ছে। এটা খেলে সংক্রমণ হবে না, ওটা খাওয়া যাবে না- এসব নিয়ে গণমাধ্যমেও প্রতিবেদন প্রকাশ হচ্ছে হরদম। কিন্তু এতকিছু না ভেবে সবার আগে সতর্ক