স্বাস্থ্যকথা

দাঁতের সুরক্ষায় করণীয়!

  

পিএনএস ডেস্ক : কমবেশি অনেকেরই দাঁতের সমস্যা রয়েছে। কিন্তু তারপরও সময় মতো দাঁতের যত্ন নেন না। তখন সমস্যা মারাত্মক আকার ধারন করে। গবেষকরা বলছেন, মুখের স্বাস্থ্যের সঙ্গে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতারও যোগ আছে। তাদের মতে, মাড়ির অসুখ এবং দাঁত পড়ে যাওয়ার সঙ্গে স্ট্রোকের যোগাযোগ আছে| জার্নাল অফ ইন্ডিয়ান পেরিডেন্টোলজি-তে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন বলছে, যাদের মুখের স্বাস্থ্য ভালো নয়‚ তাদের হৃদযন্ত্র সংক্রান্ত অসুখ হওয়ার সম্ভবনা ২০ শতাংশ বেশি। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের রুটগরস ইউনিভার্সিটির গবেষকরা জানিয়েছেন,

কিডনিতে পাথর জমছে না তো? যেভাবে বুঝবেন

  

পিএনএস ডেস্ক : ভুলভাবে জীবন যাপন, অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাস, খাওয়া-দাওয়া ও পানি পানে অনিয়মের প্রভাব পড়ে কিডনির ওপর। সাধারণত কিডনির সমস্যা হচ্ছে কি না তা বুঝতে শরীরের চাহিদা অনুযায়ী পানি পানের পরিমাণ ঠিক আছে কি না, কোমর বা তলপেটে কোনো ব্যথা হচ্ছে কি না, মূত্রত্যাগের সময় কোনো জ্বালা বা সমস্যা হচ্ছে কি না— এগুলোর দিকেই খেয়াল রাখি আমরা।তবে কিডনিতে কোনো সমস্যা হচ্ছে কি না বা অজান্তেই পাথর জমছে কি না তা টের পেতে গেলে এটুকু সাবধানতাই যথেষ্ট নয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিডনিতে পাথর কোথায় রয়েছে, কতগুলো

নাক ডাকার সমস্যা দূর করবে জাদুকরী ২ পানীয়!

  

পিএনএস ডেস্ক : নাক ডাকার সমস্যা যে বেশ বিরক্তিকর ও বিব্রতকর, তা আর নতুন করে বলে দিতে হয় না। যিনি নাক ডাকেন, তিনি না বুঝলেও পাশে থাকা মানুষটির ঘুম হারাম হয়ে যায়। তাই নাক ডাকা সমস্যাকে অবহেলা নয় মোটেই। কারণ নাক ডাকার সমস্যা আপাত দৃষ্টিতে খুব বেশি ক্ষতিকর মনে না হলেও এটি আসলে বেশ খারাপ একটি সমস্যা। এটিকে হৃদরোগের লক্ষণ হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। সমস্যাটি কীভাবে দূর করা যায় সে বিষয়ে ভাবতে হবে। ঘরোয়া ভাবে খুব সহজে এবং বেশ সুস্বাদু উপায়ে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। জানতে চান কীভাবে? চলুন তবে

শীতে ত্বক উজ্জ্বল রাখতে

  

পিএনএস ডেস্ক: শীত মানেই ধূসরতার এক আবরণ। সবকিছুই আগের থেকে রুক্ষ আর মলিন। বাদ পড়ে না আমাদের ত্বকও। শীত যতই জেঁকে বসে, আমাদের ত্বকও তত অনুজ্জ্বল হতে থাকে। এই সময়ে মুখরোচক খাবার একটু বেশিই খাওয়া হয়। সেইসঙ্গে পানি কম খাওয়ার বিষয়টি তো রয়েছেই। ময়েশ্চারাইজার মেখেও শেষ রক্ষা হয় না।শীতে এমন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে খাবার বিষয়ে মেনে চলুন এই নিয়মগুলো। এগুলো আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তুলবে নিমিষেই-প্রথমেই আপনার খাবার তালিকার দিকে নজর দিন। কার্বোহাইড্রেট, এসেনশিয়াল ফ্যাট, প্রোটিন এবং সবুজ

বিয়ের পরে যেসব খাবার খাবেন

  

পিএনএস ডেস্ক: বিয়ে মানেই নতুন একটি জীবন। বিয়ের পরে অনেকরকম পরিবর্তন আসে জীবনযাপনের ক্ষেত্রে। ভিন্ন পরিবেশ ও খাদ্যাভ্যাসের দু’জন মানুষ একসঙ্গে থাকতে শুরু করলে এমন হওয়াটাই স্বাভাবিক। আসে মানসিক পরিবর্তনও। মূলত হরমোনের পরিবর্তনই এর পেছনে দায়ী। বিয়ের পরে শরীর ঠিক রাখতে খেতে হবে নির্দিষ্ট কিছু খাবার। জেনে নিন বিয়ের পরে কোন খাবারগুলো পাতে রাখবেন-ডিমশরীরের ক্লান্তি দূর করতে ডিমের বিকল্প নেই। তাই আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ডিম অবশ্যই রাখবেন। সম্ভব হলে ডিম সেদ্ধ করে খান।রসুনরসুনের

যে ফল ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

  

পিএনএস ডেস্ক: ডায়াবেটিস হলে শরীরে ইনসুলিন হরমোনের নিঃসরণ কমে যায়। ফলে দেহের কোষে গ্লুকোজ পৌঁছাতে পারে না। ফলে রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যায়।অতিরিক্ত শর্করাযুক্ত খাবার ডায়াবেটিসের জন্য যেমন দায়ী। ডায়াবেটিস কখনও পুরোপুরি ভালো হয় না। তবে এই রোগ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। খাদ্যাভাসের মাধ্যমে এটি নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।কালো জামের কথা আমরা সবাই জানি। এই কালো জামের দানা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। জামের দানায় রয়েছে অত্যাবশ্যকীয় কিছু পুষ্টি উপাদান। যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে।পুষ্টিবিষয়ক

অফিসে স্বাস্থ্য রক্ষা

  

পিএনএস ডেস্ক: আপনার অফিস যদি অন্যান্য অফিসের মতো জনাকীর্ণ ফাস্টফুড ও হরেক রকম হোটেলের ভিড়ে অবস্থিত হয় তাহলে আপনার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা কিছুটা কঠিনই হবে। অফিস কর্মকর্তাদের সাধারণত সহজেই শরীর থেকে তিন হাজার ক্যালরি ব্যয় হয়। মহিলা কর্মকর্তাদের বেলায় এক হাজার ৪০০ ক্যালরি বেশি ব্যবহৃত হয়।সকালের নাশতাসকালে কাজে বের হওয়ার আগে একটি স্বাস্থ্যসম্মত নাশতা গ্রহণ করা উচিত। আপনি ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ করবেন এবং চর্বিজাতীয় খাবার পরিহার করবেন। যদি এমন হয় সকালে আপনার খিদে লাগেনি, ফলে আপনি খেতে

শীতে পা ফাটা দূর করার ঘরোয়া উপায়

  

পিএনএস ডেস্ক:শীতকালের উত্তুরে হাওয়া আর শুষ্ক আবহাওয়ার হাত ধরে আসা যে সব সমস্যা নিয়ে নাজেহাল হতে হয়, পা পাটা তার অন্যতম। অনেকেরই সারা বছর কম-বেশি পা ফাটে। তবে শীতে যেন এই কষ্ট লাগামছাড়া। পায়ের পাতার তলদেশে এর প্রভাব সবচেয়ে বেশি। পা ফেটে চামড়া উঠে যাওয়ার সমস্যা যেমন থাকে, তেমন অনেকের আবার রক্তও বেরয়।এমনিতেই দুই পায়ের পাতাকেই গোটা শরীরের ভর বহন করে, তার ওপর পথঘাটে সবচেয়ে বেশি ধুলোর সংস্পর্শে থাকে পায়ের পাতা। তবু রূপচর্চায় পায়ের পাতাকেই সবচেয়ে বেশি অবহেলা করি আমরা। অথচ সারা বছর সামান্য

ইনসুলিন, কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণসহ ৭ রোগের মহৌষধ ধনেপাতা

  

পিএনএস ডেস্ক: অনেকেই মনে করেন, ধনেপাতা শুধু রান্নার স্বাদ বাড়াতে কাজে লাগে। কিন্তু জানেন কি, একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা দূর করতেও এর জুড়ি মেলা ভার! আসুন জেনে নেওয়া যাক ধনেপাতার কয়েকটি স্বাস্থ্যগুণ সম্পর্কে যেগুলো হয়তো অনেকেরই অজানা...ধনেপাতার স্বাস্থ্যগুণ:১. ধনেপাতা রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।২. দাঁত ও মাড়ির সুস্থতায় ধনেপাতা অত্যন্ত কার্যকরী একটি ভেসজ উপাদান। ধনেপাতা দাঁতের ফাঁকে ব্যাক্টেরিয়াকে বাসা বাঁধতে বাধা দেয়। ফলে সুস্থ থাকে দাঁত ও মাড়ি।৩.

ডায়াবেটিস থাকলে প্রতিদিন ১টা করে আমলকী খান, ফল পাবেন হাতেনাতে!

  

পিএনএস ডেস্ক :আমলকী পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ একটি ফল। টক স্বাদের এই ফলটিতে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এতে থাকা খনিজ ও ভিটামিন শরীরের জন্য শুধু উপকারী নয়; এটি নানা ধরনের অসুখ প্রতিরোধেও দারুণ কার্যকরী।আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় আমলকীর নানা ব্যবহার রয়েছে। চুল থেকে শুরু করে ত্বক কিংবা রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়ানো- সব কিছুর জন্যই আমলকী উপকারী।গবেষণায় দেখা গেছে, আমলকীতে থাকা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ফ্রি রেডিকেল ধ্বংস করতে সাহায্য করে। এই ফ্রি রেডিকেলের কারণে নানা ধরনের অসুখ যেমন-ডায়াবেটিস,

Developed by Diligent InfoTech