অপরাধ

যে কারণে ভিক্ষুকের কোলের বাচ্চা সবসময় ঘুমিয়ে থাকে!

  

পিএনএস ডেস্ক :সারাবিশ্বেই ভিখারিদের এক অবস্থা। বিশ্বজুড়ে যেখানেই আপনি ভিক্ষুকের কোলে ছোট কোনো বাচ্চা দেখতে পাবেন, খেয়াল করে দেখবেন বাচ্চাটি ঘুমিয়ে আছে। কী বাংলাদেশ, আর কী ব্যাংকক, আমেরিকা। কখনও কি মনে প্রশ্ন জেগেছে, ভিক্ষুকের কোলের বাচ্চাটি সবসময় ঘুমিয়ে থাকে কেনো?এই প্রশ্নের উত্তরের পিছনে রয়েছে, ভয় জাগানিয়া দারুণ বীভৎস এক কাহিনী। এই চিত্র শুধু কোনো একটি দেশের নয়। পৃথিবীর সব দেশের কাহিনী প্রায় একইরকম। ভিক্ষুকদের পিছনে কাজ করে সুসংগঠিত সন্ত্রাসী মাফিয়া বাহিনী, যারা রাস্তার মোড়ে মোড়ে থাকা

২৮৭ তরুণীকে ধর্ষণ করে অবশেষে ধরা খেল সেই ‘রয়েল-চিটার’

  

পিএনএস ডেস্ক: জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তার নাম রাব্বী হোসেন চৌধুরী। তবে পরিচয়পত্রটি নকল; নিজের মর্জিমাফিক নাম-তথ্যাদি যুক্ত করে বানানো হয়েছে। কখনো তিনি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের এমডি; কখনোবা নামিদামি করপোরেট হাউসের জিএম। চলাফেরায় বেশ ধোপদুরস্ত; কথাবার্তায় ঝলকে উঠে হাই ক্লাস সোসাইটির ফুলঝুরি। আর এসব অভিজাত্যপূর্ণ নাম-ধাম-পোশাক ও চাল-চলনের নেপথ্য উদ্দেশ্যটি খুবই কুৎসিত। সমাজের প্রতিষ্ঠিত নারীরা তার টার্গেট। কথার মোহে আকৃষ্ট করে তিনি তরুণীদের সঙ্গে প্রথমে বন্ধুত্ব করতেন। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে

রাজধানীর মিরপুরে কিশোরীকে ছয় দিন ধরে ৮ জনের গণধর্ষণ

  

পিএনএস ডেস্ক : রাজধানীর মিরপুরের একটি খালি প্লটে এক কিশোরীকে ৬ দিন আটকে গণধর্ষণ করেছে ৮ বখাটে। এ ঘটনায় ৩ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরা হলেন ইমরান (১৯), খোকন মিয়া (২০) ও বিজয় (১৮)।পল্লবী থানার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল মাবুদ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।গত শুক্রবার রাতে ভিকটিম’র ভাই বাদী হয়ে পল্লবী থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনার মূল আসামি আমজাদ হোসেন একই এলাকায় বসবাস করেন।ভিকটিমের ভাই জানান, আসামি আমজাদ হোসেন একই এলাকায় বসবাস করার সুবাদে আমার বোনের সঙ্গে

বান্দরবানে জি কে শামীমের সম্পদের পাহাড়, পুলিশ ফাঁড়ি বানিয়ে স্বার্থসিদ্ধির ধান্দা

  

পিএনএস ডেস্ক: পার্বত্য বান্দরবান জেলা সদর থেকে গাড়ি নিয়ে রুমা-থানচি সড়ক ধরে পাঁচ কিলোমিটার এগোলেই পাহাড়চূড়ায় নীলাচল পর্যটন কেন্দ্র। তা পেরিয়ে আরেকটু সামনে গেলেই চোখে পড়ে একটি সাইনবোর্ড। এতে লেখা ‘ক্রয় সূত্রে এই জায়গার মালিক সিলভান ওয়াই রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা সেন্টার’।সাইনবোর্ডের আওতাধীন এই অংশের দেড় শ গজের মধ্যেই রয়েছে একটি পুলিশ ফাঁড়ি। তবে সেই দূরত্বও আরেকটু কমেছে। কারণ সিলভান ওয়াই রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা বান্দরবান জেলা পুলিশকে এই ফাঁড়ির জন্য প্রায় সাড়ে ১৮ শতক জমি দান করেছে। ফাঁড়ির জন্য

দুই আওয়ামী লীগ নেতার বাসায় অভিযান, মিলল ক্যাসিনোর কোটি টাকা ও সোনা

  

পিএনএস ডেস্ক: ঢাকার গেণ্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এনামুল হক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রূপন ভূঁইয়ার বাসায় অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। অভিযানে তাদের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ সোনা ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান বলেন, 'অভিযানে এ পর্যন্ত অন্তত এক কোটি পাঁচ লাখ নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া আনুমানিক ৭৩০ ভরি সোনা পাওয়া গেছে তাদের বাসায়। সব হিসাব শেষ করে বিস্তারিত জানানো হবে।র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক

ক্লাবপাড়ায় ৫০ গডফাদার

  

পিএনএস ডেস্ক: পঞ্চাশ মাফিয়ার নিয়ন্ত্রণে ঢাকার ক্লাবপাড়া। আর এই মাফিয়াদের অধিকাংশই ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতা। এই মাফিয়ারাই রাজধানীর বিভিন্ন ক্লাবে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও নেপালের মতো বসিয়েছেন ক্যাসিনো। আর এই ক্যাসিনো থেকে তারা হাতিয়ে নিয়েছেন বিপুল পরিমাণ অর্থ। হয়েছেন বিত্ত-বৈভবের মালিক। এরই মধ্যে তারা মোটা অঙ্কের অর্থ বিভিন্ন কৌশলে বিদেশে পাচার করেছেন। বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী ক্রীড়া ক্লাবের পরিবেশকে বদলে দিয়ে করেছেন অপরাধের আখড়া। রাত গভীর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেসব ক্লাবে আনাগোনা বাড়তে

ভয়ঙ্কর ইলেকট্রিক শকে নিষ্ঠুর নির্যাতন

  

পিএনএস ডেস্ক: জেরার মুখে র‌্যাব জানতে পারে, কমলাপুরে যুবলীগ নেতা খালেদের একটি ডেরা রয়েছে। সেখানে তিনি যান বিশেষ বিশেষ সময়ে। নিতান্তই ব্যক্তিগত কাজে। র‌্যাবের দল সেই আস্তানার খোঁজে অভিযান চালায়। আস্তানার খোঁজও মিলে যায়। গত বুধবার গ্রেফতারের পর ব্যাপক জেরার মুখে খালেদ তার এই আস্তানার তথ্য দেয় র‌্যাবের কাছে। রাজধানীর কমলাপুরের রেল স্টেশনের ঠিক উল্টো দিকে ইস্টার্ন কমলাপুর টাওয়ার। সেই টাওয়ারের চতুর্থ তলাতেই মিলে গেল ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার আস্তানা। র্যা বের দল সেখানে

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অস্বাস্থ্যকর টেন্ডার বাণিজ্যঃ ৫ গুণ বেশী দামে নিম্নমানের যন্ত্রপাতি কিনেছে ইডিসিএলঃ পর্ব-৩

  

পিএনএস (মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার) : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন অধিদপ্তর এবং পরিদপ্তরে টেন্ডার বাণিজ্য থামছেই না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ই-জিপি টেন্ডারের নীতি এখানে মার খাচ্ছে। সিপিটিইউ-এর নীতিমালার প্রতি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনেক প্রতিষ্ঠানের ভ্রুক্ষেপ নেই। বিশেষ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ইডিসিএল এখন দুর্নীতির ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। অবস্থা দেখে মনে হয়, ইডিসিএল-এর টেন্ডার বাণিজ্য তথা দুর্নীতি থামানোর কেউ নেই। জনশ্রুতি আছে, ইডিসিএল-এর বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রফেসর ডাক্তার এহসানুল কবির

ড্রেজিং ঠিকাদারী কাজে অভারলেপিংঃ প্রকল্প বাস্তবায়নে ধীরগতি এবং নানামুখী জটিলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে

  

পিএনএস (মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার) : নদী ও নৌপথ-এর ড্রেজিং কাজের ঠিকাদার নিয়োগে ব্যাপক হারে অভারলেপিং হচ্ছে। চিহ্নিত কিছু ঠিকাদার হাতে কাজ থাকা সত্ত্বেও তাদের সক্ষমতার বাইরে নতুন নতুন কাজের সাথে সংযুক্ত হচ্ছে। এ কারণে প্রকল্প বাস্তবায়নে ধীরগতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। আবার প্রকল্প বাস্তবায়নে ‘কাটার সাকশান ড্রেজার’ ব্যবহার করার কথা থাকলেও কোন কোন ড্রেজিং ঠিকাদার কাজ নিয়ে সেগুলো সাব-কন্ট্রাক্টরদের মাধ্যমে সম্পাদন করছে। এই সমস্ত সাব-কন্ট্রাক্টর ড্রেজিং করার পরিবর্তে স্যান্ড কাটার বা বাল্ক হেড কিংবা এসকেভেটার

এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানী লিমিটেডে টেন্ডার বাণিজ্য চলছেই : দেখার কেউ নেই?

  

পিএনএস (মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার) : এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানী লিমিটেডে টেন্ডার বাণিজ্য চলছেই। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অংশ হিসেবে ই-জিপির মাধ্যমে টেন্ডার করার কথা থাকলেও বিভিন্ন কৌশলে ইডিসিএল এই প্রক্রিয়াকে বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে যাচ্ছে। সরকারের সিপিটিইউ-এর নীতিমালাকেও ইডিসিএল একেবারেই তোয়াক্কা করছে না। ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য খাতের বেশ কয়েকটি ইউনিটে দরপত্র জালিয়াতদের শত শত কোটি টাকার দুর্নীতির প্রমাণ মিলেছে। পত্র-পত্রিকায় এ সমস্ত অভিযোগ প্রকাশের পর দুর্নীতি

Developed by Diligent InfoTech